Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ২০ জানুয়ারি, ২০১৮

প্রকাশ : ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১৮:১৮ অনলাইন ভার্সন
সাংসদের মেয়েকে ছুরিকাঘাতের ঘটনায় মামলা
শেখ আহসানুল করিম, বাগেরহাট:
সাংসদের মেয়েকে ছুরিকাঘাতের ঘটনায় মামলা

বাগেরহাটে আওয়ামী লীগের সংরক্ষিত মহিলা এমপি হ্যাপি বড়ালের মেয়ে অদিতি বড়ালের উপর হামলার ঘটনার দু'দিন পর থানায় মামলা হয়েছে। রবিবার গভীর রাতে মহিলা এমপি হ্যাপি বড়াল নিজে বাদী হয়ে বাগেরহাট মডেল থানায় অজ্ঞাতনামা আসামির বিরুদ্ধে একটি মামলা করেছেন। এ ঘটনায় পুলিশ এখনো পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। তবে পুলিশ জড়িতদের ধরতে অভিযান চালাচ্ছে বলে দাবি করেছে। 

১৬ ডিসেম্বর শনিবার শহরের আমলাপাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে মহিলা পরিষদ আয়োজিত বিজয় দিবসের অনুষ্ঠান থেকে সন্ধ্যায় শালতলাস্থ বাসায় ফেরার পথে হ্যাপি বড়ালের মেয়ে অদিতি বড়ালকে অজ্ঞাত যুবক ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে তাকে উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

মামলার বরাত দিয়ে বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাতাব উদ্দিন বলেন, ২০০০ সালের ২০ আগষ্ট প্রকাশ্য দিবালোকে নারী সাংসদ হেপী বড়ালের স্বামী আওয়ামী লীগ নেতা কালিদাস বড়ালকে গুলি করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। ওই ঘটনায় দীর্ঘ একযুগ পরে জড়িতদের কয়েকজনকে আদালত মৃত্যুদন্ড, যাবজ্জীবন সাজা দেয়। এছাড়া বেশ কয়েকজনকে খালাস দেয় আদালত। নিন্ম আদালতে তিনি ন্যায় বিচার পাননি দাবি করে রায়ের পর তিনি যাবজ্জীবন ও খালাস প্রাপ্তদের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে রিট আবেদন করেন। এতে ক্ষুব্দ হয়ে খালাস ও দন্ডপ্রাপ্তরা সংঘবদ্ধ হয়ে এমপির পরিবারকে হত্যার পরিকল্পনা করছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। এই মামলায় অন্যতম মৃত্যুদণ্ড পাওয়া আসামি আলমগীর সিদ্দিকী বর্তমানে যশোর কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন। গত ২৩ মে আলমগীরের স্ত্রী বাগেরহাটের পারিবারিক আদালতে যৌতুক নিরোধ আইনে একটি মামলা করেন। ওই মামলার মাধ্যমে তিনি যশোর থেকে বাগেরহাট কারাগারে আসেন। মামলার আসামি আলমগীর সিদ্দিকী আদালতে হাজিরা দিতে এসে বড়াল হত্যা মামলার খালাস ও দন্ডপ্রাপ্ত আসামিদের সাথে শলা-পরামর্শ করে তার পরিবারকে হত্যার ষড়যন্ত্র করছেন। তারই ধারাবাহিকতায় পরপর দুই বার তার মেয়ে অদিতি বড়ালের উপর এই হামলা হয়েছে বলে তিনি এজাহারে উল্লেখ করেছেন।

তিনি আরও বলেন, আমরা মামলাটি এজাহার হিসেবে নথিভুক্ত করেছি। আমরা মামলাটি গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত শুরু করেছি। এই হামলার ঘটনায় জড়িতদের ধরতে পুলিশের একাধিক দল কাজ করছে। অভিযান অব্যাহত রয়েছে। খুব শিগগির তাদের সনাক্ত করে ঘটনার রহস্য উদঘাটন করা হবে। এমপির পরিবারকে নিরাপত্তা দিতে তার বাড়িতে পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে।
মহিলা এমপি হ্যাপি বড়ালের মেয়ের উপর হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে জড়িতদের দ্রুত খুজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা. মোজাম্মেল হোসেন এমপি ও  সাধারণ সম্পাদক এবং বাগেরহাট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ কামরুজ্জামান টুকু।

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow