Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৬:৩২ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৬:৫২
'নির্বাচনে না এলে বিএনপির রাজনৈতিক পরিচয় টিকে থাকবে না'
মাগুরা প্রতিনিধি
'নির্বাচনে না এলে বিএনপির রাজনৈতিক পরিচয় টিকে থাকবে না'

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফর উল্লাহ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চান সকল রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণে একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নিরেপেক্ষ নির্বাচন। যাতে জনগণ তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করতে পারেন। কিন্তু বিএনপি-জামায়তসহ স্বাধীনতা বিরোধীরা আগামী নির্বাচন নিয়ে নানা যড়যন্ত্র করছে। আগামী নির্বাচনে অংশ নেবে না বলে মির্জা ফখরুল সাহেব বলেছেন। কিন্তু আগামী নির্বাচনে অংশ না নিলে বিএনপির রাজনৈতিক পরিচয় টিকে থাকবে না। 

মঙ্গলবার মাগুরা নোমানী ময়দানে জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় তিনি আরও বলেন, বিএনপি ভেবেছিল ২০১৪ সালের নির্বাচনে পিছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় আসতে পারবে। কিন্ত জনগণ তাদের প্রতাখ্যান করেছে। আগামী নির্বাচনেও জনগণ তাদের প্রত্যাখ্যান করবে। 

অনুষ্ঠানে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি তানজেল হোসেন খানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহামুদ স্বপন এমপি, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মাগুরা-২ আসনের এমপি অ্যাড. বীরেন শিকদার, কেন্দ্রীয় বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, কেন্দ্রীয় সদস্য পারভীন জামান কল্পনা, মাগুরা-১ আসনের এমপি মেজর জেনারেল (অব.) এটিএম আব্দুল ওয়াহ্হাব, সংরক্ষিত মহিলা সংসদ সদস্য কামরুল লায়লা জলি, প্রধানমন্ত্রীর সহকারি একান্ত সচিব অ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর। 

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ কুন্ডু, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান রুস্তম আলী, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অফম আব্দুল ফাত্তাহ, মুন্সি রেজাউল হক, আবু নাসির বাবলু প্রমুখ।    
  
এ সময় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মাহবুব আলম হানিফ বলেন, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা আওয়ামী লীগও দেয় নাই সরকারও দেয় নাই, এই মামলা দিয়েছিল তত্ত্বাবধায়ক সরকার। আওয়ামী লীগ প্রতিহিংসার রাজনীতি করে না। তড়িঘড়ি করে মামলার কোনোরায়ও হয়নি। আইন তার নিজ গতিতে চলেছে। এ কারণে দীর্ঘ ১০ বছর মামলা চলার পর রায় হয়েছে। উপরন্ত আদালত তার বয়স বিবেচনা করে ১০ বছরের সাজা কমিয়ে ৫ বছরের সাজা দিয়েছেন। এ ক্ষেত্রে সরকার কোনো প্রকার প্রভাব বিস্তার করেনি উল্লেখ করে তিনি দেশের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আগামী নির্বাচনে নৌকায় ভোট দিয়ে শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করতে আহ্বান জানান। 

তিনি আরো বলেন, এই পাঁচ বছরই শেষ নয়। আরো মামলা আছে। পেট্রোল বোমায় মানুষ পোড়ানোসহ বিভিন্ন মামলায় তাকে জেলের ঘানি টানতে হবে।

বিডি-প্রতিদিন/১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮/মাহবুব

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow