Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২০ মার্চ, ২০১৮ ০০:১৩ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২০ মার্চ, ২০১৮ ০৪:৩১
জোড়া লাগা যমজ ইতি ও সিঁথির মৃত্যু
মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি
জোড়া লাগা যমজ ইতি ও সিঁথির মৃত্যু
bd-pratidin

ঢাকার কেরানীগঞ্জের হাসনাবাদ এলাকার আদদীন প্রাইভেট হাসপাতালে গত বছরের ৫ ডিসেম্বর অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে যমজ কন্যা সন্তানের জন্ম দেন তাসলিমা আক্তার। জন্মের পর জোড়া লাগা ওই যমজ কন্যাদের নাম রাখা হয় ইতি ও সিঁথি। জন্মের সাড়ে তিন মাস পর মৃত্যুর কাছে হেরে গেল জোড়া লাগা ওই দুই বোন। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার দোগাছি এলাকায় নিজ বাড়িতে তাদের মৃত্যু হয়। 

ইতি ও সিঁথি সাধারণ যমজ শিশুদের মতো ছিল না। বরং তাদের দুজনের শরীর একসঙ্গে লাগানো ছিল। 

জোড়া লাগা শিশুদের বাবা আবুল কালাম জানান, গত ৫ ডিসেম্বর ঢাকার কেরানীগঞ্জের হাসনাবাদ এলাকার আদদীন প্রাইভেট হাসপাতালে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে যমজ কন্যা সন্তান জন্ম নেয়। পরে গত বছরের ১৭ ডিসেম্বর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু বিভাগে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে ৭ দিন চিকিৎসাধীন রাখার পর ২৪ ডিসেম্বর নিজ বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। এসব বিষয়ে জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানা সার্বিকভাবে সহযোগিতা প্রদান করেন। আলাদা করার বিষয়ে চিকিৎসকরা বয়স বাড়ার জন্য অপেক্ষা করছিলেন। কিন্তু সোমবার সকাল থেকে ইতি ও সিঁথির অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকে।

জানা যায়, ইতি ও সিঁথির হাত-পা, মাথা পৃথক থাকলেও পেটের দিকে জোড়া লাগানো ছিল। তাদের আলাদা করার জন্য চিকিৎসা প্রয়োজন ছিল। কিন্তু চিকিৎসার খরচ মেটানোর মতো সামর্থ্য তার মা-বাবার ছিল না। তবুও সাহায্য-সহযোগিতার মাধ্যমে চিকিৎসা চালাতে চাইলে চিকিৎসকরা বয়স বাড়ার জন্য অপেক্ষা করছিলেন। কিন্তু সোমবার সকাল থেকে ইতি ও সিঁথির অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকে। পরে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সব অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে ইতি ও সিঁথি চলে যায় না ফেরার দেশে। 

বিডি প্রতিদিন/২০ মার্চ ২০১৮/এনায়েত করিম

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow