Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ১৮:২৪ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ১৯:৪১
ঝিনাইদহে কমিউনিটি ক্লিনিকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি:
ঝিনাইদহে কমিউনিটি ক্লিনিকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ
প্রতীকী ছবি
bd-pratidin

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার চান্দুয়ালী কমিউনিটি ক্লিনিকে এক নারী শ্লীলতাহানির শিকার হয়েছেন। নজরুল ইসলাম নামে এক স্বাস্থ্য সহকারীর বিরুদ্ধে ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন ডা. রাশেদা সুলতানার কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ওই নারী। বিষয়টি জানাজানি হওয়ায় স্বাস্থ্য সহকারী মঙ্গলবার এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে বলে জানা গেছে।

স্থানীয় মেম্বার আলীমুদ্দীন ও গোলাম রসুল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বেজিমারা গ্রামের আশরাফুলের স্ত্রীকে ফুঁসলিয়ে চান্দুয়ালী কমিউনিটি ক্লিনিকে নিয়ে যান নজরুল ইসলাম এবং তার শ্লীলতাহানি ঘটান। ঘটনাটি তার সাথে থাকা শিশুটি দেখে ফেলে বাড়িতে এসে সবাইকে বলে দেয়।

অভিযুক্ত নজরুল ইসলামের স্ত্রী আসমাউল হুসনা চান্দুয়ালী কমিউনিটি ক্লিনিকে হেলথ প্রোভাইডার হিসেবে কর্মরত। সেই হিসেবে নজরুল ইসলাম স্বাস্থ্য সহকারী হলেও ফিল্ডে না গিয়ে স্ত্রীর পক্ষে চিকিৎসা সেবা দেন।

এলাকার একাধিক নারীর অভিযোগ, নজরুল ইসলাম চিকিৎসা নিতে আসা মেয়েদের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেন। এতে অনেক নারী ক্ষোভে চিকিৎসা নিতে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন।

অভিযুক্ত নজরুল জানান,অভিযোকারী ওই নারীকে আমি বউমা বলে ডাকি। হঠাৎ বউমার ছেলেটি পড়ে মাথা কেটে যায়। এই কারণে ছেলেকে কমিউনিটি ক্লিনিকে এনে চিকিৎসা দিয়েছি। এটাই আমার অপরাধ। এখানে স্থানীয় ইউপি সদস্য আলীমুদ্দিন দীর্ঘদিন ধরে আমার কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিল। টাকা দিতে ব্যর্থ হওয়ায় এ মিথ্যা অপবাদ ছড়াচ্ছে।

সিভিল সার্জন ডা. রাশেদা সুলতানা জানান, আমি এ ধরনের একটি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্তের জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সাজ্জাদ হোসেনকে দায়িত্ব দিয়েছি। তদন্তে দোষী প্রমাণিত হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, আমারও প্রশ্ন নজরুল তো স্বাস্থ্য সহকারী, তাকে তো চান্দুয়ালী কমিউনিটি ক্লিনিকে দায়িত্ব পালনের কথা না। তিনি তো ফিল্ডে থাকবেন। ঘটনার দিন তিনি কেন সেখানে থাকলেন?


বিডি প্রতিদিন/১৭ এপ্রিল ২০১৮/হিমেল

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow