Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২৩ মে, ২০১৮ ১৭:০১ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২৩ মে, ২০১৮ ১৭:০২
দিনাজপুরে খনি শ্রমিকদের বিক্ষোভ মিছিল
দিনাজপুর প্রতিনিধি:
দিনাজপুরে খনি শ্রমিকদের বিক্ষোভ মিছিল

দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিকদের আন্দোলন ১১ দিন ধরে অব্যাহত রয়েছে।  কর্মসূচির অংশ হিসেবে বুধবার দুপুর ১২টায় খনি আবাসিক গেটের সামনে থেকে মোটরসাইকেল র‌্যালি ও সকাল ১১টায় বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। র‌্যালিতে শতাধিক মোটরসাইকেল অংশ নেয়।

কয়লা খনি এলাকার বৈগ্রাম, কালুপাড়া,পাতরাপাড়া, মৌপুকুর, চৌহাটি, তাতিগ্রাম, পাতিপাড়া, জিগাগাড়ি, কাজিপাড়া, রসুলপুর, দূর্গাপুর, দলদলিয়া, শাহগ্রাম, মহেষপুর, শেরপুর, হামিদপুর, মোবারকপুর, জবরপাড়া ও বড়পুকুরিয়া বাজার প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় আবাসিক গেটের সামনে গিয়ে র‌্যালিটি শেষ হয়। 

মোটরসাইকেল র‌্যালি ও বিক্ষোভ মিছিলে নেতৃত্ব দেন বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি রবিউল ইসলাম, সাবেক সভাপতি ওয়াজেদ আলী, সাধারণ সম্পাদক আবু সুফিয়ান, ক্ষতিগ্রস্থ ২০ গ্রাম সমন্বয় কমিটির আহবায়ক মিজানুর রহমান মিজান, সাবেক আহবায়ক মশিউর রহমান বুলবুল ও বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম। 

এর আগে খনির আবাসিক গেটের সামনে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে শ্রমিক নেতারা কর্মবিরতি, বিক্ষোভ মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রাখার ঘোষণা পুনর্ব্যাক্ত করেন। 

এদিকে, বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানি লিমিটেডের (বিসিএমসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী হাবিব উদ্দীন আহাম্মদ সাংবাদিকদের জানান, গত মঙ্গলবার থেকে খনিতে আংশিকভাবে কয়লা উত্তোলন করা হচ্ছে। প্রতিদিন এক শিফটে গড়ে এক হাজার মে. টন কয়লা উত্তোলন হচ্ছে। তিনি আরো জানান, ইয়ার্ডে ২ লাখ ৩০ হাজার মে. টন কয়লা মজুদ রয়েছে। 

উল্লেখ্য, ১৩ দফা দাবিতে ১৩ মে থেকে খনি গেটের সামনে অবস্থান নিয়ে খনি শ্রমিকরা অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি পালন করছে। এদিকে শ্রমিকদের আন্দোলনের সময়ে কয়লা উৎপাদন অব্যাহত রাখতে বড়পুকুরিয়া খনিতে চীনা শ্রমিক দিয়ে কয়লা উৎপাদন শুরু করা হয়েছে। তবে এসব শ্রমিক দিয়ে দিনে এক শিফটে কাজ করানো হচ্ছে। 

এদিকে ১৫ মে শ্রমিকদের সঙ্গে খনি কর্মকর্তাদের সংঘর্ষ হয়। এতে উভয় পক্ষের ১৪ জন আহত হয়। এ ঘটনায় খনির ব্যবস্থাপক (নিরাপত্তা) সৈয়দ ইমাম হাসান বাদী হয়ে শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন ও খনি এলাকার ক্ষতিগ্রস্থ ২০ গ্রামের সমন্বয় কমিটির ৪০ জন ও অজ্ঞাতনামা ৭০ সহ মোট ১১০ জনকে আসামি করে ১৬ মে পার্বতীপুর থানায় পৃথক দু’টি মামলা করা হয়েছে। 

অপরদিকে একই ঘটনায় ২০ মে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আবু সুফিয়ান খনির ১৪ জন কর্মকর্তাকে আসামি করে দিনাজপুর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন।


বিডি প্রতিদিন/২৩ মে ২০১৮/হিমেল

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow