Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২৪ মে, ২০১৮ ২২:১৯ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২৪ মে, ২০১৮ ২২:২৯
হারিয়ে যাচ্ছে ডাকবক্স
পিরোজপুর প্রতিনিধি
হারিয়ে যাচ্ছে ডাকবক্স
bd-pratidin

এক সময়ের দৈনন্দিন জীবনের সাথে ওতপ্রোত জড়িত ছিল ডাক বিভাগ বা পোস্ট অফিসের ডাকবাক্স। সাধারণ থেকে অতিগুরুত্বপূর্ণ সকল প্রয়োজনে ব্যবহৃর হতো এ ডাকবাক্স গুলো। কিন্তু বর্তমানে এর প্রয়োজন এক প্রকার ফুরিয়ে গেছে।

বেশিদিন আগের কথা নয়, মাত্র এক দশক আগেও পিরোজপুর জেলায় ডাক বিভাগের ডাকবাক্স ছিল জীবনের অপরিহার্য অংশ। এ সব ডাকবাক্সে পরিবারের যে কোন চিঠিপত্র ফেলে আসতে ঘরের অপেক্ষাকৃত কিশোর সদস্যদের মধ্যে কাড়াকাড়ি শুরু হত। আত্মীস্বজন, বন্ধু-বান্ধবসহ বিভিন্ন প্রয়োজনের চিঠিপত্র পাঠাত ব্যবহৃত হত এ মাধ্যমটি। মাত্র এক দশকের ব্যবধানে তথ্য প্রযুক্তির নতুন সব মাধ্যমের কারণে এক প্রকার অচল হয়ে পরে আছে ডাক বিভাগের এ সব ডাকবাক্স। ব্যবহার না হওয়ার কারনে এগুলোর বর্তমান অবস্থা বেহাল। ভাঙ্গাচোরা অবস্থায় এ সব ডাকবাক্স গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোর সামনে এখনও দাঁড়িয়ে আছে অনেকটাই অপ্রয়োজনীয় হয়ে।
পিরোজপুর জেলার সদর উপজেলায় রয়েছে প্রধান ডাকঘর এছাড়া মঠবাড়িয়া, ভান্ডারিয়া, কাউখালী, নাজিরপুর, ইন্দুরকানী উপজেলারসহ মোট ৬ টি উপজেলায় রয়েছে উপজেলা ডাকঘর। এছাড়া স্বরুপকাঠী উপজেলাটি রয়েছে ঝালকাঠী ডাক বিভাগের মধ্যে। জেলায় এছড়াও সাব অফিস রয়েছে ৫ টি। শাখা অফিস রয়েছে ১০৯ টি। সদর উপজেলাসহ ৬ টি উপজেলায় মোট পোস্ট বক্স। রয়েছে প্রায় ১০০ টি।  ব্যবহার না থাকায় আগের মত এখন আর প্রতিদিন খোলা হয় না অধিকাংশ ডাকবাক্স। তাই অযত্নে অবহেলায় দিন দিন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে এসব বাক্স।
পিরোজপুর জেলার প্রধান ডাকঘরের ভারপ্রাপ্ত পোস্ট মাস্টর মো: মজিবর রহমান জানান, ডাকবক্স গুলো নিয়মিত খোলা বা দেখাশুনা করা না হবার বিষয়টি সঠিক নয়। তিনি আরো জানান, জেলার প্রধান পোস্ট অফিস, উপজেলা পোস্ট অফিস, শাখা অফিস এবং সাব অফিসে ডাকবক্স রয়েছে, তবে এখন আর এসব বক্সে চিঠিপত্র তেমন পাওয়া যায় না। তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারের ফলে ডাক বক্সের ব্যবহার কমে গেছে, কাউকে তো জোর করে ব্যবহার করাতে পারি না।

বিডি-প্রতিদিন/ সালাহ উদ্দীন

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow