Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২৬ মে, ২০১৮ ১৭:২৫ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২৬ মে, ২০১৮ ১৭:৩১
নকলে সহায়তার অভিযোগে কলেজ অধ্যক্ষসহ আটক ১৯
পাবনা প্রতিনিধি:
নকলে সহায়তার অভিযোগে কলেজ অধ্যক্ষসহ আটক ১৯

পাবনায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় নকলে সহযোগীতার অভিযোগে কলেজ অধ্যক্ষসহ ৪ শিক্ষক এবং ১৫ পরীক্ষার্থীকে আটক করেছে প্রশাসন। এ সময় পরীক্ষার্থীদের নিকট থেকে বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস উদ্ধার করা হয়। পরে আটককৃতদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করা হয়। 

পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) জালাল উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, শনিবার জেলার বিভিন্ন পরীক্ষা কেন্দ্রে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা শুরু হলে স্থানীয় প্রশাসন বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে তাদের আটক করে পাবনা সদর থানায় আনা হয়।

পাবনা জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন নিজেই এর নেতৃত্ব দেন। তিনি আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সরকারি প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় নকলের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে ছিল জেলা প্রশাসন। মোট ২৬ জন ম্যাজিস্ট্রেট বিভিন্ন পরীক্ষাকেন্দ্র পরিদর্শনে ছিলেন। পরিদর্শনকালে অসাদুপায় অবলম্বন করায় পরীক্ষার্থীদের বিভিন্ন ডিভাইস ও নকলের উপকরণসহ হাতেনাতে আটক করা হয়। এছাড়া সরকারী শহীদ বুলবুল কলেজের অধ্যক্ষ রেজাউল করীমসহ কয়েকজন কক্ষ পরিদর্শককে নকলে সহায়তার অভিযোগে আটক করে পাবনা সদর থানায় আনা হয়েছে। তাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে সাজা দেয়ার প্রক্রিয়া চলছে বলেও জানান তিনি।

ওসি জালাল উদ্দিন আরো জানান, প্রশাসনের নির্দেশে আটককৃত শিক্ষকরা হলেন সরকারী শহীদ বুলবুল কলেজের অধ্যক্ষ রেজাউল করীম, প্রভাষক আব্দুল হক, দুলাই কলেজের প্রভাষক শামীম হোসেন, প্রভাষক ইকবাল হোসেন। 

পরীক্ষার্থীদের মধ্যে নারী ও পুরুষ মিলে আটককৃতদের প্রত্যেকের ১৫ দিন করে কারাদণ্ড  দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রিফাত ইসলাম। শিক্ষকদের বিরুদ্ধে কি ধরনের আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান তিনি। 


বিডি প্রতিদিন/২৬ মে ২০১৮/হিমেল

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow