Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৩ জুন, ২০১৮ ১৮:৩৭ অনলাইন ভার্সন
ধুনটে ড্রেজার মেশিনে বালু উত্তোলনে হুমকির মুখে ব্রিজ
নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া:
ধুনটে ড্রেজার মেশিনে বালু উত্তোলনে হুমকির মুখে ব্রিজ

বগুড়ার ধুনট উপজেলার বাঙ্গালী নদীর বিলচাপড়ী এলাকায় জোড়া ব্রীজের নিকট ড্রেজার মেশিন বসিয়ে বালু উত্তোলন করছে। অব্যাহত বালু উত্তোলনের কারণে নদী এলাকার বসতবাড়ী ও ফসলী জমিসহ কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত আরসিসি গার্ডার জোড়া ব্রিজটি হুমকির মুখে পড়েছে। 

একদিকে নদী ভাঙ্গছে অন্যদিকে বালু দস্যুদের বেপরোয়ার কারণে ফসলি দেবে নদীর বুকে ভেঙ্গে যাচ্ছে। 

জানা যায়, বগুড়ার ধুনট উপজেলার এলাঙ্গী ইউনিয়নের বিলচাপড়ী এলাকার বাঙ্গালী নদীতে প্রায় ১২ কোটি টাকা ব্যায়ে জোড়া আরসিসি গার্ডার ব্রীজ নির্মাণ করা হয়। কিন্তু ব্রীজটি নির্মানাধীন অবস্থা থেকেই ওই নদীতে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে এক শ্রেণির প্রভাবশালী ব্যক্তিরা অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করে আসছে। ইতিপূর্বে প্রশাসন অভিযান চালিয়ে অবৈধ বালু উত্তোলনকারীদের গ্রেফতার করে ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা করায় দীর্ঘদিন ওই নদী থেকে বালু উত্তোলন বন্ধ ছিল। কিন্তু সম্প্রতি আবারো ওই ব্রীজের উত্তর ও দক্ষিন পাশে দুটি ড্রেজার মেশিন বসিয়ে এক শ্রেণীর প্রভাবশালী ব্যক্তিরা বালু উত্তোলন করে বিক্রি করে আসছে। বালু বিক্রির ট্রাকগুলো বিলচাপড়ী উচ্চ বিদ্যালয় ও বিলচাপড়ী আইডিয়াল কলেজের মাঠ দিয়ে চলাচল করছে। নদীর গভীর তলদেশ থেকে দুটি ড্রেজার মেশিন দিয়ে পাইপের সাহায্যে বালু উত্তোলনের কারনে ইতিমধ্যেই নদীর বিভিন্নস্থানে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। স্থানীয় প্রভাবশালীদের এভাবে বালু উত্তোলনের কারনে কোটি কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত জোড়া ব্রীজটিও হুমকির মুখে পড়েছে। 

বিলচাপড়ী গ্রামের আজিজর রহমান বলেন, বালু উত্তোলনকারীরা প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পায় না। তাই তারা এলাকার ক্ষতি করে অবৈধভাবে বালুর ব্যবসা চালিয়ে আসছে। ড্রেজার মেশিন দিয়ে বোরিং করে নদীর গভীর তলদেশ থেকে বালু উত্তোলনের কারণে ইতিমধ্যে বিভিন্ন স্থানে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। এছাড়া ব্রীজের নিকট ড্রেজার মেশিন বসানোর কারনে ব্রীজটিও হুমকির মুখে পড়েছে। তবে এসব বিষয়ে প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পাচ্ছেন না তারা।

বিলচাপড়ী গ্রামের বালু ব্যবসায়ী রবিউল হাসান জানান, একজন ঠিকাদার এই বালু উত্তেলন করছে। সে দাবী করে বলে সে নিয়ন মেনেই বালু উত্তোলন করে বিক্রি করছে। 

বগুড়ার ধুনট উপজেলা প্রকৌশলী জহুরুল ইসলাম জানান, ব্রীজের নিকট থেকে বালু উত্তোলন করা হলে ব্রীজের পিলার ডেবে ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই এবিষয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হবে। ব্রীজটি প্রায় কোটি টাকা ব্যায়ে এলজিইডি নির্মাণ করেছে। 

বগুড়ার ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিয়া সুলতানা বলেন, এবিষয়ে খোঁজ নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow