Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১১ জুলাই, ২০১৮ ১৮:২২ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১১ জুলাই, ২০১৮ ১৮:২৮
ধামরাইয়ে ইয়াবা খাইয়ে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ
পাঁচ দিনেও গ্রেফতার হয়নি ধর্ষক
সাভার প্রতিনিধি:
ধামরাইয়ে ইয়াবা খাইয়ে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ
প্রতীকী ছবি
bd-pratidin

ধামরাইয়ে পঞ্চম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে ইয়াবা ট্যাবলেট খাইয়ে রাতভর ধর্ষণ করেছে এক বখাটে। ঘটনার পাঁচ দিন পার হয়ে গেলেও ধর্ষক দেবাশীষ চৌধুরীকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। তবে ধর্ষককে গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে দাবি করেছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ পরিদর্শক (এসআই) কামাল হোসেন। তিনি বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ঘটনার পরের দিন তার এক সহযোগী রিমা আক্তারকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ধর্ষিতার পরিবার ও মামলা সূত্র জানায়, আশুলিয়ার গাজীরচট এলাকায় পরিবারের সাথে থেকে স্থানীয় একটি স্কুলে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়াশুনা করে ওই ছাত্রী। শুক্রবার গত (৬ জুলাই) বিকেলে স্কুলছাত্রীর বোনের বান্ধবী ধামরাইয়ের কেলিয়া গ্রামের রিপন হোসেনের মেয়ে রিমা আক্তার তাকে বেড়ানোর কথা বলে নিয়ে যায়। পরে টাকার বিনিময়ে ওই নারী স্কুলছাত্রীকে গাইরাকুল গ্রামের অধীর চৌধুরীর ছেলে দেবাশীষ চৌধুরীর কাছে তুলে দেয়। দেবাশীষ তার মালিকানাধীন ধামরাইয়ের আইঙ্গন এলাকার মেসার্স অর্নব এন্টারপ্রাইজ নামের একটি গুদাম ঘরে আটকে রাখে। পরে স্কুলছাত্রীকে ভয় দেখিয়ে ইয়াবা ট্যাবলেট খাইয়ে রাতভর তার উপর চালায় পাশবিক নির্যাতন। শনিবার সকালে ধর্ষিতার পরিবার খবর পেয়ে স্কুলছাত্রীকে গুদাম ঘর থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় শনিবার বিকেলে স্কুলছাত্রীর বোন বাদী হয়ে ধামরাই থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করলে রিমা আক্তার নামের এক নারীকে আটক করে পুলিশ।

ধর্ষিতার বোন অভিযোগ করে বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, স্কুলছাত্রীকে টাকার বিনিময়ে বখাটের হাতে তুলে দিয়েছে তার বন্ধাবী। এ ঘটনার পাঁচ দিন পার হয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত বখাটে ধর্ষণকারীকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

এ ব্যাপারে ধামরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল হক বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, স্কুলছাত্রী ধর্ষণের ঘটনার এক সহযোগীকে আটক করা হয়েছে। এছাড়াও এ ঘটনার প্রধান আসামিকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও তিনি জানান।

বিডি প্রতিদিন/১১ জুলাই ২০১৮/হিমেল

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow