Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৮ জুলাই, ২০১৮ ১২:৩৫ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১৮ জুলাই, ২০১৮ ১২:৩৬
‘লংগদু সেনা জোন উন্নয়নমুখী শিক্ষানীতি বাস্তবায়নে ভূমিকা রাখছে’
ফাতেমা জান্নাত মুমু, রাঙামাটি
‘লংগদু সেনা জোন উন্নয়নমুখী শিক্ষানীতি বাস্তবায়নে ভূমিকা রাখছে’

রাঙামাটি জেলায় লংগদু সেনা জোন উন্নয়নমুখী শিক্ষানীতি বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে বলে মন্তব্য করেছেন খাগড়াছড়ি রিজিয়নের কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার আব্দুল মোতালেব সাজ্জাদ মাহামুদ।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে লংগদু সেনা জোনের উদ্যোগে উপজেলা পরিষদের মিলানায়তনে আয়োজিত সনদপত্র ও সেলাই মেশিন বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ব্রিগেডিয়ার আব্দুল মোতালেব সাজ্জাদ মাহামুদ এ কথা বলেন।

লংগদু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. তোফাজ্জল হোসেনের সভাপতিত্বে এতে আরও উপস্থিত ছিলেন, লংগদু জোনের (২ বেঙ্গল) বিদায়ী জোন কমান্ডার লে. কর্নেল আ. আলীম চৌধূরী, ক্যাপ্টেন ফেরদৌস, রেংকাইজ্জা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক উষা আলো চাকমা, লংগদু সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রাজিব ত্রিপুরা প্রমুখ।

খাগড়াছড়ি রিজিয়নের রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার আব্দুল মোতালেব সাজ্জাদ মাহামুদ আরও বলেন, লংগদু সেনা জোন কর্তৃক শান্তি, সম্প্রীতি ও উন্নয়নের ধারাকে প্রবাহমান ত্বরান্বিত করতে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি কারিগরী শিক্ষার দ্বার উন্মোচন একটি যুগান্তকারী উদ্যোগ যা এলাকার সকল মহলে কাছে এক নতুন অধ্যায়। এই উদ্যোগের সুফল ভোগ করবে লংগদুবাসী।

লংগদু জোন কমান্ডার লে. কর্নেল আ. আলীম চৌধুরী বলেন, রাঙামাটি জেলাধীন লংগদু এমন একটি থানা যেখানে লংগদু সেনা জোন গোড়াপত্তন করেছে দুটি হাই স্কুলের। ইয়ারাংছড়ি সেনা মৈত্রী উচ্চ বিদ্যালয় ও কালাপাকুজ্যা সেনা মৈত্রী উচ্চ বিদ্যালয় নামে এ স্কুল দুটি তাদের শৈশব ও কৈশোর পার করে যৌবনে পদার্পণ করেছে।

তিনি বলেন, ২০১৭-১৮ সালের লংগদু জোন কালাপাকুজ্যায় ও সদরে ২টি কিন্ডার গার্টেন স্কুল প্রতিষ্ঠা করেছে। এ অঞ্চলের মানুষদের জন্য দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন ছিল। এছাড়া ২০১৬ সালে কমিউনিটি কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্র খোলা হয়। পাশাপাশি সিসি ক্যামেরাসহ ইন্টারনেট সুবিধা সংযোজন করা হয়। এ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে  সর্বমোট ১৪২জন শিক্ষার্থী সফলতার সাথে প্রশিক্ষণ নিয়েছে। বর্তমানে আরও ৩৪ জন প্রশিক্ষণ নিয়েছে। এছাড়া নারীদের আত্মকর্মসংস্থান গড়ে তুলার লক্ষ্যে লংগদু সেনা জোন কমিউনিটি সেলাই প্রশিক্ষণ কেন্দ্র চালু করেছে। দক্ষ ও অভিজ্ঞ প্রশিক্ষকের দ্বারা সেলাই প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। প্রশিক্ষণ শেষে তাদের আনুষ্ঠানিকভাবে সেলাই মেশিনও বিতরণ করা হয়েছে।

আলোচনা সভা শেষে রিজিয়ন কমান্ডার প্রশিক্ষণ সমাপ্তকারীদের মাঝে সনদ বিতরণের পাশাপাশি কুশল জ্যোতি চাকমা ও মো. জু্য়ল রানাকে ল্যাপটপ ও সুবর্ণা চাকমা ও বাসিরুন আক্তারকে সেলাই মেশিন প্রদান করা হয়। এছাড়া ১৪ ব্যাচে ২৬৬ জন কম্পিউটার ও ৬ ব্যাচে ১২০ জনের মাঝে সনদপত্র বিতরণ করা হয়। সেনা মৈত্রী বিদ্যানিকেতন ছাত্র ছাত্রীদের জন্য একটি অটোরিকশা উপহার দেন লংগদু সেনা জোন কমান্ডার লংগদু জোন কমান্ডার লে. কর্নেল আ. আলীম চৌধুরী।

পরে লংগদু সেনা জোনের পক্ষ থেকে রিজিয়ন কাপ বিজয়ী সকল খেলোয়াড়দের নিকট একটি করে ওয়ালপেপার উপহার দেন।

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা 

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow