Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২০ জুলাই, ২০১৮ ২২:০০ অনলাইন ভার্সন
নোয়াখালীতে বিএনপির সমাবেশে হামলা, আহত ১০
নোয়াখালী প্রতিনিধি
নোয়াখালীতে বিএনপির সমাবেশে হামলা, আহত ১০

বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সমাবেশের শেষ পর্যায়ে শুক্রবার বিকেলে একদল কর্মীর হামলায়  ছাত্র ও যুবদলের ১০ নেতা কর্মী আহত হয়েছে। আহতরা হচ্ছেন, সোহাগ, সজিব, শাহাদাত, রাজিব হোসেন, জাবেদ, রাশেদ, মাহামুদুল হাছান, বিপ্লব, মনসুর হাছান, রনি, মিজান।

আহতদের ২ জনকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

প্রত্যক্ষদশীরা জানান, সংঘর্ষ এড়াতে পুলিশ শর্টগানের গুলি ও লাঠিচার্জ করে। এতে বিএনপির নেতাকর্মীরা আহত হন।

এদিকে সুধারাম থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন জানান, গুলিবর্ষণের বিষয়টি সত্য নয়।

নোয়াখালী জেলা বিএনপির উদ্যোগে নোয়াখালী প্রেসক্লাবের সামনে অ্যাডভোকেট আঃ রহমানের সভাপতিত্বে সমাবেশ চলছিল। এতে বক্তব্য রাখেন বিএনপি নেতা গোলাম হায়দার বিএসসি, গিয়াস উদ্দিন সেলিম, মাহাবুব আলমগীর আলো, সলিম উল্লা বাহার হিরন, আবু নাছের, শহীদুল ইসলাম কিরন, ওমর ফারুক টপি, যুবদলে জেলা সভাপতি মঞ্জুরুল আজিম সুমন, সেক্রেটারী নুরুল আমিন খান, ছাত্রদলের সভাপতি আজগর উদ্দিন দুখু, আবু হাছান নোমান  প্রমুখ বক্তব্য রাখেন, সভা শেষ পর্যায়ে এ সময় একদল কর্মী সমাবেশে হামালা চালায়। এতে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়। তবে বিএনপি নেতারা এ ঘটনার জন্য ছাত্রলীগ যুবলীগকে দায়ী করেছে।
সুধারাম থানার ওসি আনোয়ার হোসেন বলেন, হাতাহাতি হয়েছে তেমন বড় কিছু নয়, তবে বিএনপির লোকজন এটাকে বাড়িয়ে রাজনীতি করছে।

জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম হায়দার বিএসসি বলেন, বিএনপির শান্তিপূর্ণ সমাবেশে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা হামলা চালায়। এতে ছাত্র ও যুবদলের ২০/২৫ নেতা কর্মী আহত হয়েছে বলে দাবি করেন। তিনি বলেন এ সব হামলা মামলা দিয়ে কাজ হবেনা। অবিলম্বে বেগম জিয়াকে মুক্তি দিয়ে সরকার পদত্যাগ করে সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে হবে। না হলে গণ আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করা হবে।  

বিডি-প্রতিদিন/ সালাহ উদ্দীন

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow