Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১০ আগস্ট, ২০১৮ ২২:১৭ অনলাইন ভার্সন
আরও এক দফা এগিয়ে গেল পায়রা বন্দরের কার্যক্রম
কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি
আরও এক দফা এগিয়ে গেল পায়রা বন্দরের কার্যক্রম

মাত্র পাঁচ বছর আগে সেখানে দিনেও পদচারনা ছিলনা কোন মানুষের। বনজঙ্গলে ঘেরা পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার টিয়াখালীর সেই জনপদ এখন পরিণত হয়েছে আলোকিত জনপদে। ২০১৩ সালের ১৯ নভেম্বরে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতের ছোঁয়ায় শুরু হয় দেশের তৃতীয় সমুদ্র বন্দর পায়রার মহা কর্মযজ্ঞ। এরই ধারাবাহিকতায় বন্দর সংলগ্ন এলাকায় পাঁচ তলা বিশিষ্ট একটি প্রশাসনিক ভবনের আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনের ফলে আরও এক দফা এগিয়ে গেল পায়রা বন্দরের কার্যক্রম।

শুক্রবার বেলা এগারটায় প্রায় ১২ কোটি ৭০ লাখ ব্যয়ে এ ভবনটি উদ্বোধন করনে প্রধান অতিথি নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান। এ সময় সাবেক প্রতিমন্ত্রী অলহাজ্ব মাহাবুবুর রহমান এমপি, নৌপরিবহন মন্ত্রনালয়ের সচিব মো.আবদুস সামাদ, পায়রা বন্দর চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসেন, জেলা প্রশাসক ড.মাসুমুর রহমান,পুলিশ সুপার মইনুল হোসেনসহ উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। 

এছাড়া নৌপরিবহন মন্ত্রী একই দিনই পায়রা বন্দর নির্মাণে অধিগ্রহণকৃত জমির ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে পুনর্বাসনের অংশ হিসেবে কর্মদক্ষতা বৃদ্ধিতে তিনটি কোর্সের প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করনে। পায়রা বন্দরকে ঘিরে বিশাল কর্মযজ্ঞের একটি অংশ হিসেবে এসব কার্যক্রম শুরু হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

জানা গেছে, পায়রা বন্দরের মূল চ্যানেল রাবনাবাদ পাড়ের চাড়িপাড়ায় নির্মাণ করা হচ্ছে ৬০০ মিটার দীর্ঘ টার্মিনাল। এবছরের শেষের দিকে টার্মিনাল নির্মাণ কাজ শুরু হবে। যদিও ২০২১ সালের মধ্যে টার্মিনাল নির্মাণ কাজ সম্পন্নের লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে ২০১৯ সালের শেষের দিকে শেষ করার আশ্বাস রয়েছে পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষের। টার্মিনালে সরাসরি দুইটি মাদার ভেসেল একই সময় ভিড়তে পারবে। পারবে পণ্য খালাশ করতে। 

টার্মিনাল নির্মাণে তিন হাজার ৯৮২ কোটি টাকা ব্যয়-বরাদ্দের কথা জানা গেছে। টার্মিনাল নির্মিত হলে পায়রা বন্দর থেকে বড় বড় জাহাজের পণ্য খালাসের মতো অবকাঠামো সুবিধা পাবেন আমদানিকারকরা। টার্মিনালটি নির্মিত হলে এ বন্দর থেকে রাজস্ব আয়ের মধ্য দিয়ে দেশ জাতীয় প্রবৃদ্ধিতে অবদান রাখবে বলে মনে করছেন অভিজ্ঞমহল।

 

বিডি প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ সিফাত তাফসীর

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow