Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৭:৩৪ অনলাইন ভার্সন
কক্সবাজারে ওআইসির প্রতিনিধি দল
'রোহিঙ্গা সংকটের স্থায়ী সমাধানে আরো জোরালো ভূমিকা রাখতে হবে'
কক্সবাজার প্রতিনিধি:
'রোহিঙ্গা সংকটের স্থায়ী সমাধানে আরো জোরালো ভূমিকা রাখতে হবে'
কক্সবাজারে ওআইসির প্রতিনিধি দল

‘রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন তরাণ্বিত করতে এবং রোহিঙ্গা সংকটের স্থায়ী সমাধানে ওআইসিভূক্ত দেশগুলোকে আরো জোরালো ভূমিকা রাখতে হবে। পাশাপাশি মিয়ানমারের সাথে যেসব দেশের সম্পর্ক ভাল, তাদেরকেও এই সংকটে এগিয়ে আসতে হবে’। বুধবার দুপুরে কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং শরণার্থী ক্যাম্পে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন ওআইসি সংসদীয় প্রতিনিধিদলের নেতা (সেক্রেটারি জেনারেল) এম জুহামেদ কুরাইশি নিয়াজ।

প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি আরো বলেন, ‘রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশের সাথে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি হয়েছে তা একটি ভালো দিক। তবে যেসব মুসলিম দেশের সাথে মিয়ানমারের সম্পর্ক ভালো রয়েছে তাদেরকেও এগিয়ে আসতে হবে’।

তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের এই সংকটে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের বসে থাকলে চলবে না। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে অবশ্যই রোহিঙ্গাদের পাশে থাকতে হবে। রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে এসে এবং রোহিঙ্গাদের সাথে কথা বলে যে অবস্থা দেখেছি, তা সত্যিই অবর্ণনীয়। এতে বুঝা যায় মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের উপর সত্যিই বর্বর নির্যাতন হয়েছে। আমাদেরকে অবশ্যই রোহিঙ্গাদের পাশে এসে দাঁড়াতে হবে এবং তাদের সাহায্যে এগিয়ে আসতে হবে। এজন্য মিয়ানমারকে চাপ প্রয়োগ করতে হবে’। 

এর আগে ওআইসির সংসদীয় প্রতিনিধি দল সকালে কক্সবাজার বিমানবন্দর হয়ে সরাসরি ঘুমধুম ট্রানজিট ক্যাম্প পরিদর্শনে যান এবং পরে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উখিয়ার কুতুপালং নিবন্ধিত রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ‘ইউনিএইচসিআর’ এর ট্রানজিট সেন্টারে যান। সেখানে নির্যাতত কিছু সংখ্যক রোহিঙ্গাদের সাথে কথা বলেন।

এছাড়াও উখিয়ার কুতুপালং ডি-৪ ব্লকে অবস্থিত ‘ইউএনএইচসিআর’ ‘ইউএনএফপি’ ‘ইউএনডিপি’ সহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থার নারীবান্ধক কেন্দ্র, শিশুবান্ধক কেন্দ্রের নির্যাতিতদের সাথে কথা বলেন। পরে দুপুর ২টার দিকে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ডি-৫ ব্লকের ইউএনএইচসিআর’ এর সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের ব্রিফিং করেন।

প্রতিনিধি দলে রয়েছেন ওআইসি’র সংসদীয় প্রতিনিধিদলের সেক্রেটারি জেনারেল মোহাম্মদ কুরাইশি নিয়াশ, ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল আলী আজগর মোহাম্মদী সিজানি, ডাইরেক্টর অব কনফারেন্স জাহিদ হাসান কুরশি, ইরানের সংসদ সদস্য সৈয়দ হিমায়েত মিরজাদি, মোহাম্মদ হোসাইন কুর্ডলু, তুরুস্কের হেড অব ডেলিগেশন ওরহান এ্যাটালাই, মমতাজ জারনি, মালেশিয়ার ডেপুটি স্পিকার রশিদ বিন হাসনুন, মহসীন বিন আব্দুল মালেক, আলজেরিয়ার সংসদ সদস্য ইউসেফ এডজিসা, সুদানের ওমর ইবনে দুউদ, মাহামুদু ডিজুগা ডিজুদ্দি, ইসাখা ইসা ইউছুপ, আল হাসান মোহাম্মদ, অসীম উমর আহমেদ আদনান, মোক্তার আহমদ, মাহজুমা হাসান মুসা, আবদেল রহমান হোসাইন, মরক্কোর মোহাম্মদ ওজ্জিন, বাংলাদেশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব স্বর্ণালী ছন্দাসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থার প্রতিনিধিরা।


বিডি প্রতিদিন/১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮/হিমেল

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow