Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৭:৩১ অনলাইন ভার্সন
আগৈলঝাড়ায় যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে নির্যাতনের অভিযোগ
নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল:
আগৈলঝাড়ায় যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে নির্যাতনের অভিযোগ
প্রতীকী ছবি
bd-pratidin

বরিশালের আগৈলঝাড়ায় যৌতুক দাবিতে স্বামীর অমানুসিক নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে বাবার বাড়ি আশ্রয় নিয়েছেন এক গৃহবধূ। শুক্রবার উপজেলার বাকাল ইউনিয়নের ফুল্লশ্রী গ্রামের মনির খলিফার মেয়ে নির্যাতিত সুমা আক্তার আগৈলঝাড়া প্রেসক্লাবে এক লিখিত অভিযোগে এ কথা জানান। 

এসময় তিনি জানান, ৪ বছর আগে একই উপজেলার রাজিহার ইউনিয়নের চেংগুটিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল আজিজ ঘরামীর ছেলে মিরাজুল ইসলামের সাথে সামাজিকভাবে নগদ ৫০ হাজার টাকা যৌতুক ও স্বর্ণালংকারসহ বিভিন্ন উপঢৌকন দিয়ে বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন পর মিরাজুল ঢাকায় তার ব্যবসা সম্প্রসারণ ও যাতায়াতের জন্য মোটরসাইকেল কিনতে ২ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। স্ত্রী সুমা যৌতুক দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে সুমার উপর নেমে আসে নির্যাতনের চরম খড়গ। যৌতুক না দেওয়ায় সুমার উপর শারীরিক নির্যাতন চালিয়ে আসছিলো মিরাজুল। শ্বশুর পরিবার যৌতুকের টাকা দিতে অস্বীকার করায় সম্প্রতি ঘরের দরজা জানালা বন্ধ করে ওড়না দিয়ে হাত পা বেঁধে সুমার উপর অকথ্য নির্যাতন চালায় মিরাজুল। যৌতুকের দাবিকৃত ২ লাখ টাকা না দিলে সুমাকে তালাক দিয়ে তার প্রেমিকা খাদিজাকে বিয়ে করার হুমকি দেয় মিরাজুল। সুমার এসএসসি ও এইচএসসি’র সার্টিফিকেট আটকে রেখে তাকে তালাক দিতে বলে সে। অব্যাহত নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচতে চলতি মাসের শুরুর দিকে সুমা তার বাবার বাড়ি আশ্রয় নেয়। 

নির্যাতিত সুমা আরও জানায়, তাদের বিয়ের পরে প্রতারণা করে মিরাজুল গৌরনদী উপজেলার রাজাপুর গ্রামে আরেকটি বিয়ে করে। স্বামীর চরম নির্যাতনে সুমার তিন মাসের সন্তান নষ্ট হয়ে যায়। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করার কথা বলেন সুমা। 


বিডি প্রতিদিন/১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮/হিমেল

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow