Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৭ অক্টোবর, ২০১৮ ১৮:২০ অনলাইন ভার্সন
পেকুয়ায় তরুণীকে গণধর্ষণ, আটক ১
চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি:
পেকুয়ায় তরুণীকে গণধর্ষণ, আটক ১
প্রতীকী ছবি

কক্সবাজারের পেকুয়ায় সপ্তদশী এক তরুণী গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। ধর্ষণে অভিযুক্ত এক জনকে আটক করেছে পুলিশ। ধর্ষণে অপর অভিযুক্ত দুইজন পলাতক রয়েছে। আজ বুধবার ভোররাত দেড়টার দিকে উপজেলার টৈটং ইউনিয়নের ধনিয়া কাটা এলাকায় এ গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ভিকটিম বাদী হয়ে আজ পেকুয়া থানায় মামলা দায়ের করেছেন। 

গ্রেফতার হওয়া গণধর্ষণে অভিযুক্ত মনজুর আলমের ছেলে আলী হোসেন। পলাতকরা হলেন, আবদুল মতলবের ছেলে মিজানুর রহমান ও মৃত আহমদ হোসেনের ছেলে নেজাম উদ্দিন। 

ভিকটিমের মা ও এলাকার লোকজন জানায়, ওই তরুণী মঙ্গলবার দুপুরে নিজ বাড়ি রাজাখালী সিকদার পাড়া থেকে সিএনজি চালিত টেক্সি করে টৈটংয়ের ধনিয়াকাটাস্থ আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যাচ্ছিল। ওই টেক্সিতে চালক জুনাইদ ছাড়াও আরো কয়েকজন যুবক ছিল। তরুণীকে আত্মীয়ের বাড়ি না নিয়ে এদিক-ওদিক ঘুরে রাত দেড়টার দিকে ধনিয়াকাটস্থ কবরস্থানে নিয়ে গণধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে তরুণীর চিৎকার শুনে নিকটস্থ বিভিন্ন বাড়ির লোকজন এগিয়ে আসলে ধর্ষকরা পালিয়ে যায়। ভিকটিমকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে ধর্ষিত কিশোরীর কাছ থেকে নাম জেনে পুলিশ অভিযান চালিয়ে আলী হোসেনকে গ্রেফতার করে। ওই সময় ঘটনার ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদ করতে তারেক ও আবু ছিদ্দিক নামের দুই ভাইকেও থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। তাদের আরেক ভাই মিজানুর রহমান গণধর্ষণে নেতৃত্ব দেয় বলে ভিকটিম মামলার এজাহারে দাবী করেছেন। 

মুঠোফোনে জানতে চাইলে পেকুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. জাকির হোসেন ভুঁইয়া বলেন, ভিকটিম বাদী হয়ে তিনজনকে আসামি করে থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। এজাহার নামীয় আলী হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর দুইজনকে ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। 

ওসি আরো বলেন, ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষা করানোর পর আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি নেয়া হবে। 

  বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow