Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৯ অক্টোবর, ২০১৮ ১৯:২৯ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১৯ অক্টোবর, ২০১৮ ২১:১৩
ভুল চিকিৎসায় অন্তঃসত্ত্বার মৃত্যু, চিকিৎসকদের পলায়ন
সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি
ভুল চিকিৎসায় অন্তঃসত্ত্বার মৃত্যু, চিকিৎসকদের পলায়ন
প্রতীকী ছবি

সিদ্ধিরগঞ্জে ভুল চিকিৎসায় তাহমিনা খান (৩৪) নামে এক অন্তঃসত্ত্বা নারীর মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে সিদ্ধিরগঞ্জের সাইনবোর্ডস্থ প্রো এ্যাকটিভ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডিউটি চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসার শিকার হয়ে তার মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ করেন স্বজনরা। 

রোগীর মৃত্যুর পর তার স্বজনরা ক্ষুদ্ধ হলে হাসপাতাল ছেড়ে চিকিৎসক ও কর্মকর্তারা পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। তাহমিনা খান ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। 

ভুল চিকিৎসায় নিহত তাহমিনা খানের দেবর ইমাম কাজী জানান, তার ভাবী তাহমিনা খান শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে অসুস্থ্যবোধ করলে সিদ্ধিরগঞ্জের সাইবোর্ডস্থ প্রো এ্যাকটিভ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নিয়ে আসেন। এ সময় ঐ রোগীর সাথে তার মা ও বড় ভাই ইব্রাহিম কাজী ও তাদের ম্যানেজার আবু তাহের মিয়া ছিলেন। পরে ডিউটি ডাঃ নাজমুল ও ডাঃ খান রিয়াজ মাহমুদ রোগীকে দেখতে চান। এসময় রোগী মহিলা ডাক্তার দিয়ে চিকিৎসা করাতে চান। পরে হাসপাতালের ইনডোর বিভাগ থেকে মহিলা ডাঃ নিশাতকে নিয়ে আসলে ডাঃ নিশাত তাহমিনা খানকে দেখে তার দেহে দুইটি ইনজেকশন পুশ করেন। 

তিনি আরও জানান, ইনজেকশন পুশ করার মাত্র ১০ মিনিট পরই রোগীর অবস্থা ধীরে ধীরে অবনতি হতে থাকে। এক পর্যায়ে জরুরী বিভাগ থেকে রোগীকে আইসিও বিভাগে পাঠানো হয়। আইসিও বিভাগে নেয়া হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তার মৃত্যু হয়েছে বলে আমাদের জানায়। 

এরপর রোগীর মৃত্যুর খবর পেয়ে তার আত্মীয়-স্বজনরা হাসপাতালে এসে বিক্ষোভ করতে থাকে। এসময় হাসপাতালের ডাক্তার ও কর্মকর্তা তালা মেরে হাসপাতাল ফেলে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) আব্দুস সাত্তার টিটুর নেতৃত্বে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

এ বিষয়ে কথা হলে প্রো এ্যাকটিভ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ব্যবস্থাপক সালাউদ্দিন ভুল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যুর কথা অস্বীকার করে বলেন, পুলিশ এসে চিকিৎসা সংক্রন্ত সবকিছু নিয়ে গেছে। আমি এখন হাসপাাতালে এসেছি। 

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) আব্দুস সাত্তার টিটু জানান, রোগীর স্বজনরা দাবি করছেন ভুল চিকিৎসায় রোগী মারা গেছে। থানায় লিখিত অভিযোগ দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।    

এলাকাবাসী জানায়, ইতিপূর্বে এ হাসপাতালে টাকার জন্য এক মৃত রোগীকে আটকে রাখে। তাছাড়া এক প্রসূতীর সীজার অপারেশন করার সময় নবজাতকের গাল কেটে ফেলার অভিযোগ রয়েছে এ হাসপাতালের চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে।


বিডি-প্রতিদিন/ আব্দুল্লাহ সিফাত তাফসীর

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow