Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৯ অক্টোবর, ২০১৮ ১৯:৫২ অনলাইন ভার্সন
রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সীমান্তে পর্যটক বাসে দুর্বৃত্তের ব্রাশফায়ার
ফাতেমা জান্নাত মুমু, রাঙামাটি
রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সীমান্তে পর্যটক বাসে দুর্বৃত্তের ব্রাশফায়ার
প্রতীকী ছবি

রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সীমান্তে পর্যটকবাহি বাস লক্ষ্য করে ব্রাশফায়ার করেছে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা। শুক্রবার দুপুরে রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সীমান্তবর্তী নানিয়ারচর উপজেলার ১৯ মাইল এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। তবে এ ঘটনায় কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, রাজশাহী থেকে আগত পর্যটকবাহি হানিফ পরিবহন নামে একটি বাস যার নং (ঢাকা-মেট্টো-ব- ১৪-৫৭২৯)খাগড়াছড়ি ঘুরে রাঙামাটি উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। বাসটি খাগড়াছড়ি-রাঙামাটি সীমান্তবর্তী এলাকায় পৌঁছালে আঞ্চলিক সংগঠনের নামধারী সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা বাসটির গতিরোধ করে দাড়াঁতে বলে। কিন্তু বাসচালক সন্ত্রাসীদের দেখে বাসটি না থামিয়ে পর্যটকদের নিয়ে এগিয়ে যায়। তাতেই বাসচালকের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা একটি মোটরসাইকেল যোগে বাসটির পিছু করে আর ব্রাশফায়ার করে। 

এ ঘটনার খবর পেয়ে এগিয়ে যায় সেনাবাহিনীর একটি টহলদল। সেনাবাহিনীর উপস্থিতি টের পেয়ে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের মোটরসাইকেল বহরটি পালিয়ে যায়। সেনা সদস্যরা পর্যটকবাহি বাসটি নিরাপদে রাঙামাটি নিয়ে আসে। এঘটনায় পর্যটকদের মধ্যে চরম আতঙ্ক দেখা দেয়। 

রাঙামাটির নানিয়ারচর থানার ভারপাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানায়, সেনাবাহিনীর টহল দল পর্যটক ও তাদের বহনকারি বাস অক্ষতভাবে রাঙামাটি পৌছায়। তাদের ঘিলাছড়ি ক্যাম্পারে সেনাবাহিনীর একটি টহল উদ্ধার করে স্কোট দিয়ে রাঙামাটির মানিকছড়ি পর্যটন এগিয়ে দিয়েছে। বাসের পিছনে সন্ত্রাসীদের ৪টি গুলি লাগে। তবে এতে পর্যটকদের কোন ক্ষতি হয়নি। 


বিডি-প্রতিদিন/ আব্দুল্লাহ সিফাত তাফসীর

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow