Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২০ অক্টোবর, ২০১৮ ১৪:৪৩ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২০ অক্টোবর, ২০১৮ ১৪:৫১
সখীপুরে দলবদ্ধ কুকুরের আতঙ্ক
সখীপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি:
সখীপুরে দলবদ্ধ কুকুরের আতঙ্ক

টাঙ্গাইলের সখীপুরে পৌর শহর ও উপজেলার বিভিন্ন এলাকার জনগণের মধ্যে বিরাজ করছে দলবদ্ধ কুকুরের আতঙ্ক। এতে স্কুল-কলেজগামী ছাত্র-ছাত্রী, শিশু ও পথচারীসহ জনসাধারণের চলাচলে ব্যাপক সমস্যা হচ্ছে। 

সরেজমিনে দেখা যায়, বেশ কয়েকদিন ধরে পৌরশহরে প্রধান প্রধান সড়ক, চৌরাস্তা, মোড় এবং ছোট-বড় বাজারে দিনে-রাত ২০-৩০টি কুকুর এক সঙ্গে দল বেধে চলাচল করছে। এরমধ্যে উত্তরামোড়, জেলখানা মোড়, উপজেলা রোড, মন্দির পাড়া, ঢাকা রোড, গার্লস স্কুল রোড, মহিলা কলেজ রোডসহ উপজেলার কচুয়া বাজার, নলুয়া বাজার, কালিয়া বাজার, ষোলা প্রতিমা বাজার, দেওদিঘী বাজার এলাকায় কুকুরের উৎপাত বেশি। কুকুরের প্রজননের সময় ঘনিয়ে আসছে বলেই পৌরশহরসহ উপজেলাব্যাপী কুকুরের আনাগোনা বেড়ে যাচ্ছে বলে জনগণের অভিমত।

এ বিষয়ে পৌর এলাকার বিভিন্ন স্কুলের একাধিক অভিভাবক বলেন, আমাদের কোমলমতি শিশুরা একা একা স্কুলে যেতে পারেনা কুকুরের আতঙ্কে।  মাঝেমধ্যে আমরাও ভয় পাই। 

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, গত এক থেকে দেড় মাসে প্রায় শতাধিক মানুষ কুকুরের কামড়ে আহত হয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসা ছাড়া এই হাসপাতালে কুকুরে কামড়ানোর কোন চিকিৎসা নেই। এ নিয়ে বিপাকে পড়তে হয়েছে রোগীর স্বজনদের। 

এ ব্যাপারে সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মো. শাহীনুর আলম বলেন, সখীপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কুকুরে কামড়ানোর ভ্যাকসিন এবং কুকুর বন্ধ্যাকরণ পদ্ধতি বা জলাতঙ্ক রোগ প্রতিরোধক ইনজেকশন বরাদ্ধ নাই। রোগী আসলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে টাঙ্গাইল সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

সখীপুর  পৌর কাউন্সিলর মো. জাহিদ হোসেন বলেন, কুকুর নিধনে উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকায় আমরা কিছুই করতে পারছি না। পৌরশহরের সকল কুকুরকে বন্ধ্যাকরনের আওতায় আনার চেষ্টা চলছে।


বিডি প্রতিদিন/২০ অক্টোবর ২০১৮/হিমেল

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow