Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ৮ নভেম্বর, ২০১৮ ১৬:৪২ অনলাইন ভার্সন
রাঙামাটিতে শিক্ষককে মারধর
ফাতেমা জান্নাত মুমু, রাঙামাটি
রাঙামাটিতে শিক্ষককে মারধর

লংগদুতে বোন পরীক্ষা দিতে না পারাকে কেন্দ্র করে বিদ্যালয়ের শিক্ষককে মারধর করেছে এক অভিভাবক। আহত শিক্ষককের নাম এমএ জামান। তিনি লংগদু মাইনীমুখ মডেল বিদ্যালয়ে ইংরেজী বিভাগের শিক্ষক। 

বৃহষ্পতিবার দুপুরে লংগদু উপজেলার মুসলিম ব্লকে এ ঘটনা ঘটে।

আহত শিক্ষক এম এ জামান অভিযোগ করে বলেন, লংগদু মাইনীমুখ মডেল বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী শিমা আক্তার। সে ওই বিদ্যালয়ের একজন অনিয়মীত ছাত্রী। সে জেএসসি ইংরেজী বিভাগের পুনঃপরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল। পরীক্ষার আগে সব শিক্ষার্থীদের রুটিনও দেওয়া হয়েছে। রুটিন অনুসারে পরীক্ষা শুরু হয়। কিন্তু শিক্ষার্থী শিমা আক্তার পরীক্ষা দিতে আসেনি। তাই তার ভাই নজরুল ক্ষিপ্ত হয়ে আমার বাড়িতে এসে আমার স্ত্রী নুর নাহার আক্তারের সামনে আমাকে মারধর করে। তাদের অভিযোগ ছিল তার বোন শিমা আক্তার পরীক্ষার রুটিন আগে থেকে জানতো না। তাই সে পরীক্ষা দিতে পারেনি। 

তিনি আরও বলেন, এ বিষয়ে আমার কিছুই করার ছিলো না। কেন তার বোন পরীক্ষ দিতে পারেনি। কি আমার অপরাধ তাও আমি জানিনা। স্থানীয় নজরুল আমাকে মারধর করে হুমকি দিয়ে চলে যায়। 
এ ব্যাপারে লংগদু মাইনীমুখ মডেল বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক রফিকুন নেছা রোজী জানান, কোনো অভিভাবক অন্যায়ভাবে একজন শিক্ষককের বাসাই গিয়ে মারধর করতে পারেনা। এটার উপযুক্ত বিচার হওয়া উচিত। এ বিষয়টি আমি লংগদু  নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবগত করেছি। তার সাথে আলোচনা করে অভিযুক্ত অভিভাবক নজরুলের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
রাঙামাটি লংগদু উপজেলা থানার তদন্ত কর্মকর্তা মো. মহিউল ইসলাম জানায়, আমরা শুনেছি শিক্ষক মারধরের বিষয়টি। তবে এখনো পর্যন্ত থানায় কোনো অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow