Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৩ নভেম্বর, ২০১৮ ২২:১৯ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১৩ নভেম্বর, ২০১৮ ২২:২৩
কুমিল্লায় দাফনের ৩ মাস পর ব্যবসায়ীর লাশ উত্তোলন
কুমিল্লা প্রতিনিধি
কুমিল্লায় দাফনের ৩ মাস পর ব্যবসায়ীর লাশ উত্তোলন

কুমিল্লার মুরাদনগরে দাফনের তিন মাস পর আলম সরকার (৪৭) নামে এক চা বিক্রেতার কবর থেকে লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। মঙ্গলবার আদালতের নির্দেশে লাশটি উত্তোলন করা হয়। আলম সরকার মুরাদনগর উপজেলার সদর ইউনিয়নের দিলালপুর গ্রামের মৃত আব্দুল জব্বারের ছেলে। 

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) রায়হান মেহবুবের উপস্থিতিতে কবর থেকে লাশটি উত্তোলন করা হয়।

আলমের স্ত্রী সালমা আক্তার জানান, আলম সরকার ১৪ বছর প্রবাসে ছিলেন। তার উপার্জনের সকল টাকা বড় ভাই আব্দুল বাতেনের ব্যাংক একাউন্টে পাঠায়। বিদেশ থেকে ফেরৎ এসে সেই টাকার হিসেব চাইলে দুই ভাইয়ের মধ্যে দ্বন্দ্ব সৃষ্টি হয়। পরে পৈতৃক জমি ভাগ বাটোয়ারা নিয়েও পারিবারিক দ্বন্দ্বের জেরে মৃত আলম স্ত্রী ও চার কন্যা সন্তান নিয়ে আলাদা বসবাস করছিলেন। জীবিকার তাগিদে স্থানীয় বাজারে একটি চায়ের দোকান দেন। 

গত ৩০ জুলাই সোমবার সকালে তার স্ত্রী সালমা আক্তার দোকানে গিয়ে স্বামীর মৃতদেহ দেখতে পায়। তার পাশে ছেড়া বালিশ শরীরে আঘাতের চি‎হ্ন দেখে সালমা মনে করেন, স্বামীকে হত্যা করা হয়েছে।

পরে সালমা আক্তার তার স্বামীর বড় ভাই আবদুল বাতেন ও তার দুই ছেলে হাসান এবং মামুনের নামে কুমিল্লা আদালতে অভিযোগ দায়ের করেন। স্ত্রী লাশ উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লার ৮নং আমলী আদালতে আবেদন করেন। আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্টেট মো.ইফরানুর রহমান চৌধুরী ময়নাতদন্তের নির্দেশ প্রদান করেন। 

রহস্য উদঘাটনের জন্য কুমিল্লা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) দায়িত্ব দেয়া হয়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই পুলিশের উপ-সহকারী বেলাল আহমেদ বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য লাশ উত্তোলন করেছি। রিপোর্টের আলোকেই পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow