Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৫ নভেম্বর, ২০১৮ ১৯:২৫ অনলাইন ভার্সন
`বাঙালীর অস্তিত্ব জড়িয়ে আছে আনন্দের উৎসব নবান্নে'
পাবনা প্রতিনিধি
`বাঙালীর অস্তিত্ব জড়িয়ে আছে আনন্দের উৎসব নবান্নে'

প্রাণে প্রাণে শুরু হয়েছে উৎসবের আমেজ। ১লা  অগ্রায়হণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ বাঙালীর নবান্ন উৎসবে কৃষক-কৃষাণীর ঘরে ঘরে আনন্দ। এই নবান্নের উৎসব ঘিরে আমাদের অনেক আয়োজন। আমার বাবা ছিলেন কৃষক। আমি মাঠে বাবার জন্য খাবার নিয়ে যেতাম। মাঝে মাঝে ক্ষেতে ফসলের পরিচর্যা করতাম এবং বাবার সাথে ধানও কাটতাম। আমাদের বাড়িতে আজকের এই নবান্নের দিনে উৎসবের আমেজ পরে যেত। বাড়িতে মেহমান আসতো। নতুন ধানের পিঠাপুলি বানাতো মা। বাঙালীর অস্তিত্বে জড়িয়ে আছে নবান্ন। বাঙালী সংস্কৃতির এ যেন এক গ্রাম বাংলার উৎসব। আজকে যারা মাঠে মাথার ঘাম পায়ে ফেলে শষ্য ফলান, দেশের মানুষের জন্য খাবার উৎপাদন করেন, তারাই এ জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। আবহমান কাল থেকেই নবান্ন কৃষান-কৃষাণীর ঘরে আনন্দ বয়ে আনে। 

বৃহস্পতিবার নবান্ন উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তবে পাবনার জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন এসব কথা বলেন।

 

নবান্ন উৎসবে তিনি আরও বলেন, নবান্ন উৎসব ঘিরে বাঙালীর মধ্যে উৎসবের আমেজ ছরিয়ে পরে। এটা বাঙালী জাতি সত্তার সংস্কৃতিকে তুলে ধরে। মূলত এই সময়টায় কৃষক ঘরে ধান তুলে। চারিদিকে নতুন ধানের মিষ্টি গন্ধে মাতয়ারা হয় গ্রাম। রসের পিঠা খেতে জামাই যায় শ্বশুড় বাড়িতে। এমনই মধুর সংস্কৃতি বাঙালীর। এটাকে ধরে রাখতে হবে। এটাই বাংলাদেশ।

এদিন সকালে পাবনা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে সদর উপজেলার মালিগাছা ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামে মাঠে ধান কেটে নবান্ন উৎসবের সূচনা করেন জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন। 

এ সময় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জেলার উপ-পরিচালক কৃষিবিদ আজাহার হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, পাবনার ঈশ্বরদী ইক্ষু গবেষণা ইনিস্টিটিউটের মহা পরিচালক ড. আমজাদ হোসেন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর অতিরিক্ত উপ-পরিচালক ড.আজিজুল হক, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শাওয়াল বিশ্বাস, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শামসুন্নাহার রেখা, মালিগাছা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাছুম বিল্লাহ প্রমূখ।

এসময় কৃষি কর্মকর্তা ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ এলাকার বিপুল সংখ্যক মানুষ উপস্থিত ছিলেন। অনষ্ঠানটি সঞ্চালনা করে ডিপ্লোমা কৃষিবিদ ইনিস্টিটিউট জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু সাইদ শিখন। নবান্ন উৎসব উপলক্ষে উপস্থিত সকলের মাঝে নবান্নের পিঠা বিতরণ করা হয়। 

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow