Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
প্রকাশ : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২২:৩৩
আপডেট : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২২:৪৭

নেশা জাতীয় দ্রব্য খাইয়ে কিশোরীকে ধর্ষণ, মূল হোতা গ্রেফতার

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি

নেশা জাতীয় দ্রব্য খাইয়ে কিশোরীকে ধর্ষণ, মূল হোতা গ্রেফতার

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার শিমুলিয়ায় নেশা জাতীয় দ্রব্য খাইয়ে এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে শাহাদাত নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার শাহাদাত ধর্ষণের ঘটনায় র‌্যাবের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। 

সোমবার দুপুরে র‌্যাব-১ এর সিপিসি-৩ এর পূর্বাচল ক্যাম্পে অুনষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।গ্রেফতার শাহাদাত রূপগঞ্জ উপজেলার মধুখালী এলাকার মৃত শাহাবুদ্দিনের ছেলে। 

সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়, রূপগঞ্জ উপজেলার হাটাব এলাকার এক কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় সোমবার সকালে গাজীপুরের কোনাবাড়ী এলাকা থেকে শাহাদাতকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। 

র‌্যাব আরো জানায়, গত ২/৩ মাস আগে ওই কিশোরীর দারিদ্রতার সুযোগে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সুমন নামের এক যুবক সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথোপকথন চলতে থাকে। সুমন ও শাহাদাত দু’জন বন্ধু। ওই কিশোরী সুমন ও শাহাদাতকে কখনও দেখেনি। শাহাদাত ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করার পরিকল্পনা করে। 

এর প্রেক্ষিতে গত ২৪ জানুয়ারি দুপুরে শাহাদাত নিজেই সুমন সেজে সোনারগাঁও উপজেলার পেরাব এলাকায় কিশোরীর সঙ্গে দেখা করে। এক পর্যায়ে ওই কিশোরীকে তাজমহল পিরামিড (রাজমনি পিরামিড) এর হোটেলে নিয়ে রাখা হয়। এরপর উত্তেজক ও নেশা জাতীয় দ্রব্যে পান করিয়ে কিশোরীকে ধর্ষণ করে। শুধু তাই নয়, ধর্ষক শাহাদাত কৌশলে কয়েক জনের সহযোগিতায় ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে। এমনকি কিশোরীকে জিম্মি করে হত্যার হুমকি দিয়ে জোরপূর্বক স্বীকারোক্তি নেয় যে, সম্পূর্ণ ঘটনা গোপন রাখবে।
 
এদিকে, কিশোরীর মা গত ৩ ফেব্রুয়ারি বাদী হয়ে সোনারগাঁও থানায় সুমনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনার রহস্য উদঘাটন করেন র‌্যাব-১ এর সিপিসি-৩ এর সদস্যরা। ঘটনার সহযোগীদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানায় র‌্যাব। 

উল্লেখ, সুমন ও শাহাদাতসহ একটি চক্র দীর্ঘদিন ধরে গার্মেন্ট কর্মী, স্কুল ছাত্রী, গৃহবধূকে ফাঁদে ফেলে নির্যাতন করার অভিযোগ রয়েছে। 


বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য