Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

হেমন্তকে শীত

আগুন মাসেই শীত পড়েছে মাঠে মাঠে ধান পেকেছে পাকুক, ধানে ধানে উঠোন দুয়ার গোলা ভরে থাকুক।   কৃষাণ মুখে হাসি ফুটেছে পিঠা পুলি খুব জুটেছে জুটুক, ঘরে ঘরে নবান্নতে দুঃখ সকল টুটুক।   হেমন্তকে শীত ডেকেছে চুপটি করে খুব দেখেছে দেখুক, ভোরের শিশির হেমন্তকে শীতের ছড়া লেখুক।

উলের জামা

ডিসেম্বরের শীতে যখন সবাই জবুথবু বারান্দাতে চেয়ার পেতে উল বুনে যান বুবু!   উল কী দিয়ে তৈরি জানো? ভেড়ার গায়ের লোম! সে লোম দিয়ে তৈরি কাপড় তোমায় দেবে ওম!   ভেড়ার গায়ের লোম কেটে নাও শীত যদি তার লাগে যাওয়ার কোনো জায়গা আছে? তাও কি ভেড়া রাগে?   তোমার গায়ের জ্যাকেট নিলে কেউ কখনো খুলে রাগ হবে? না, নাচবে তুমি মাথায় তাকে…

বিজয় এলো

বিজয় এলো পাখির গানে ভাটিয়ালী সুরে, বিজয় বাঁশি বাজছে এখন সারা বাংলা জুড়ে।   বিজয় এলো মায়ের কথায় বিজয় বোনের হাসি, বিজয় পেলো মাঠের চাষা এবং পাড়ার মাসি।   বিজয় পেলো খোকা-খুকু সারা বাংলার মানুষ, মুক্ত ঘুড়ির ওড়াওড়ি বাঙালিদের জানুস।   বন্দী ছিলাম মুক্ত হলাম বিজয় পেলাম হাতে, বর্গীরা দেশে আসবে না আর বলছে ছড়ায় মা’তে।…

বিজয়

যখন শুনি শ্যামল মাঠে শিশুর কলরব, তখন আমার মনে উঠে স্বাধীন স্বাধীন রব। পাখির গানে মন ভরে যায় সকাল সন্ধ্যাবেলা, বাউলিয়নার সুরের ধারা মনে করে খেলা। মনের সুখে রাখালেরা গান গেয়ে যায় মাঠে, ভরা কলসি কাঁখে নিয়ে গাঁয়ের বধু হাঁটে। এমন স্বাধীনতার জন্য অনেক বলিদান, বিজয় এলো বিজয় এলো রাখতে তাদের মান।

বিজয় দিনে

ছড়া আমায় দেয় না ধরা বিজয় দিবস ছাড়া, বিজয় দিবস এলে আমি হই যে পাগলপারা। রক্তগঙ্গা বিজয় আমার স্বাধীন দেশে বাস, বিজয় দিনে চোখে ভাসে আমার ভাইয়ের লাশ।

হাড়কাঁপানো শীত

শীতের বুড়ি আসলো নিয়ে হাড়কাঁপানো শীত, পাড়া গাঁয়ের কৃষাণ ছেলে গাইছে বসে গীত।   কুয়াশা ঢাকা শীতসকালে শিশিরকণা জমে, গাছের ডালে পাতার বাহার ধীরে-ধীরে কমে।   ভোরবেলাতে খেজুর গাছে ঝুলছে রসের হাঁড়ি, পিঠাপুলির বইছে আমেজ পল্লী গাঁয়ের বাড়ি।

স্বাধীনতার স্বাদ

পথ খোলা মোর অগ্রে ভ্রমণ, বন্দী করবে কে? আঁধারি কাল পেছন ফেলে লক্ষ্যে পৌঁছব রে!   পথ খোলা মোর শিখর গমন, রুখবে আবার কে? হিমালয়ের শৃঙ্গ এবার জয় করব রে!   পথ খোলা মোর শ্যামল প্রান্তে, উচ্ছেদ করবে কে? সোনালি ধানে কৃষাণীর হাসি দেখব সবে রে!   পথ খোলা মোর বিশ্বজয়ের, কাঁটার বেড়া দিবে কে? রংধনুর ঐ ভেলায় চড়ে, স্বপ্ন পূরণ করব…

শীত নেমেছে

শীত নেমে যায় সকাল বেলা শীত নেমে যায় রাত্রে, শীতের চাপে পথের মানুষ হঠাৎ ওঠে কাতরে।   শীত এসেছে এর কারণে ঠাণ্ডা লাগে চামড়ায়, ঠাণ্ডা লাগে বাইরে গেলে ঠাণ্ডা লাগে কামরায়।   কাঁপায় শীতে এদিক-সেদিক রামপুরা আর বাড্ডা, পথের ধারে শীতের পিঠা জমায় দারুণ আড্ডা।   আস্তে করে ধীরে ধীরে ঠাণ্ডা আরও নামবে, ঘোর কুয়াশা শিশির…

সম্প্রীতি

আমার প্রিয় কবি হলেন রবীন্দ্র ও নজরুল আমার প্রিয় ফুল হলো গোলাপ ও বকুল। আমার শুনতে ভালো লাগে কোকিলের ডাক আমার দেখতে ভালো লাগে মেঘনা নদীর বাঁক। আমার আরও ভালো লাগে সবুজ ভরা ধান। আমার মনে খেলা করে দখিন হাওয়ার বান আমার শুনতে ভালো লাগে বাউল লালন গীতি আমার চারপাশে আছে মানুষের সম্প্রীতি

লিখতে পারো তুমিও

ছোট্ট বন্ধুরা, তোমাদের জন্যই এই আয়োজন। ছড়া-কবিতা-গল্প লিখে পাঠাও আমাদের ঠিকানায়। সঙ্গে ঠিকানা দিও। ঠিকানা : বিভাগীয় সম্পাদক, ডাংগুলি বাংলাদেশ প্রতিদিন প্লট নং- ৩৭১/এ, ব্লক-ডি বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, ঢাকা ইমেইল : danguli71@gmail.com
কাওছার মাহমুদের কার্টুন

কাওছার মাহমুদের কার্টুন

কাওছার মাহমুদের কার্টুন
সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত
up-arrow