Bangladesh Pratidin

বৃষ্টির গানে গানে

আকাশের নীল ছুঁয়ে সাদা মেঘ ওড়ে তার সাথে লাল কালো রাঙা পথে ঘুরে। পাহাড় ও নদী যেন ঢেউ তোলে ডাকে দূর হতে সূর্যটা আল্পনা আঁকে।   ফিরে এলো মেঘ পাখি হাওয়ায় ভেসে চোখ বুঝে পৃথিবীটা ওঠে হেসে হেসে। মাটি খোঁজে বসে বসে, বৃষ্টির দিন প্রকৃতির ঘরে ঘরে বেজে ওঠে বীণ।   বাতাসের ধমকায় বৃষ্টি ও ঝড় জেগে ওঠে ঘাসগুলো সবুজের চর।…

জলের বানে

বরষা কালে সুরের তালে ঘরের চালে বৃষ্টি পড়ে, সন্ধ্যা দুপুর ভরছে পুকুর শব্দ নূপুর মিষ্টি স্বরে।   বরষা রানি দিচ্ছে পানি একটুখানি নেইত দমে, মেঘের ভেলা করে খেলা বৃষ্টিধারা কই সে কমে?   বৃষ্টি কী যে তবুও ভিজে কিষাণ নিজে ব্যস্ত কাজে, সোনার পাটে ভরা মাঠে ফসল কাটে স্বপ্ন ভাঁজে।   হলুদ ফুলে কদম—কূলে বাতাস দুলে খুশবু…

চাঁদনী রাতে

চাঁদনী রাতে মেঘের কোলে তারার একটু ঝিলমিলি শায়ান সোনা মাকে নিয়ে হাসছে যে খুব খিলখিলি।   চাঁদনী রাতে উঠোন জুড়ে আলো ছড়ায় চাঁদমণি শায়ান সোনা মাকে নিয়ে সুখে বাজায় হারমনি।   চাঁদনী রাতে পানির বুকে আরেকটা চাঁদ ফুটে শায়ান সোনা মাকে নিয়ে চাঁদ দেখতে যায় ছুটে।
বন্দি পাখি

বন্দি পাখি

খাঁচার ভেতর পাখি আছে পাচ্ছে কত? যন্ত্রণা সেই পাখিটার নাম রেখেছে ময়না পাখি মন্ত্রণা!   রাজ্য ছাড়া সাথী হারা দিনটা ভালো…

সবুজ গাঁয়ে

আসশেওড়ার গাছে ঘেরা পুকুরগুলোর পাড় তারই পাশে যায় রে দেখা বাঁশের বড় ঝাড়।   বাঁশের ঝাড়ে সারি সারি বক পাখিদের বাসা শক্ত বুনন বাসাগুলো দেখতে দারুণ খাসা।   পোকা-মাকড় খোঁজে ডাহুক আসশেওড়ার মাঝে পানকৌড়ির দেখা মেলে সকাল, দুপুর, সাঁঝে।   ঝোপ-ঝাড়েতে প্রজাপতি ফড়িং করে খেলা সবুজ গাঁয়ে এসব দেখে যায় রে আমার বেলা।

খুকুর ভালোবাসা

ভালোবাসে খেতে খুকু তাজা ভাজা মাছ, ভালোবাসে লাগাতে সে ছোট ছোট গাছ।   লাল-নীল প্রজাপ্রতি বেশি ভালোবাসে, শত রং ফুল দেখে মুখ ভরে হাসে।   ভালোবাসে পাখিদের কুহু কলতান, নদীদের কাছে শোনা রকমারি গান।   রূপকথা গল্প সে ভালোবাসে বেশ! তার চেয়েও ভালোবাসে সবুজ এই দেশ।

লিখতে পারো তুমিও

ছোট্ট বন্ধুরা, তোমাদের জন্যই এই আয়োজন। ছড়া-কবিতা-গল্প লিখে পাঠাও আমাদের ঠিকানায়। সঙ্গে ঠিকানা দিও। ঠিকানা : বিভাগীয় সম্পাদক, ডাংগুলি বাংলাদেশ প্রতিদিন প্লট নং- ৩৭১/এ, ব্লক-ডি বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, ঢাকা ইমেইল : danguli71@gmail.com
কাওছার মাহমুদের কার্টুন

কাওছার মাহমুদের কার্টুন

কাওছার মাহমুদের কার্টুন
up-arrow