Bangladesh Pratidin

মা ক্যানো হয় রাগ

এটাই আমার দোষ দোষ কী এটা বাবা—? আদর করে বলো যদি আইসক্রিম খাবা—   আমি ক্যানো না করব বরং ঠিকই হাঁ করব খেতে আম্মু তাতে রেগেই ওঠেন তেতে।

খুকীর শরৎ

শাপলা ফোটা দিঘির জলে কে ছুটে যায়? আলোর হাসি কার মুখেতে খুব শোভা পায়? মিষ্টি ভারী দুষ্টু খুকীর চঞ্চলা মন প্রজাপতির সঙ্গে তাহার ভাব সারাক্ষণ ফড়িং বনে ছুটে বেড়ায় শিউলি তুলে নীল আকাশে যায় হারিয়ে কাশের দোলে টুকরো মেঘের সাদা ছবি একখানি গাঁও খুকী আঁকে ছবির খাতায় পাল তোলা নাও।

দস্যি ছেলে

দস্যি ছেলে সুযোগ পেলে হারিয়ে যায় মাঠে সারাটা দিন টই টই টই মন বসে না পাঠে।   ভোরবেলাতে উঠেই সে যে ঘুরতে বেড়ায় গ্রামে দুপুরবেলা পুকুরজুড়ে দস্যিরা সব নামে।   সারা দুপুর ঝাপুরঝুপুর পুকুর মাঝে খেলা লাল হয়ে যায় চোখ দুটো তার যায় কেটে যায় বেলা।

মায়ের আদেশ

আমার প্রিয় মায়ের আদেশ মিথ্যে বলা বারণ, সত্যটাকে বুকের ভেতর করতে হবে ধারণ।   জেনে রেখো মিথ্যে হলো সকল পাপের মূল, চলার পথে সকল কাজে সত্য ফোটায় ফুল।

টিফিন বক্স

আচ্ছা আমার টিফিন বক্সটা রাখছি কোথায় ভুলে করছি অনেক খোঁজাখুঁজি পাচ্ছি না ব্যাগ খুলে।   বক্সটা থাকে ব্যাগের ভেতর বন্ধুরা সব জানে কে নিল যে চুপটি করে আচ্ছা কী এর মানে?   আমার সাথে টিফিন খেত যে ছেলেটা রোজ আজ সে বলে দুপুর বেলায় করবে না আর ভোজ।   এই বলে সে টিফিন বাটি সামনে ধরে কয়— টিফিন গেছে তেপান্তরে আজকে টিফিন…

আমার জন্মভূমি

সবুজ শ্যামল প্রান্তর জুড়ে আমার জন্মভূমি, সুন্দরের মাঝে অপরূপ সে যে শত শতবার চুমি। রঙে আর রঙে রাঙানো মধুর স্বপ্নরঙিন বেশ, ভুঁই চাপাতে ভরা সে যে দূর্বাদলের দেশ। আউশ, আমন ধানের খেতে কত যে হাসি খেলে, মধুর বাতাস ঢেউ খেলে যায় প্রাণ যে আমার দোলে। আমার দেশটি অনেক দামি সোনা ফলা মাটি, পরম শোভা আছে দেশে সবাই সুখে থাকি।…

লিখতে পারো তুমিও

ছোট্ট বন্ধুরা, তোমাদের জন্যই এই আয়োজন। ছড়া-কবিতা-গল্প লিখে পাঠাও আমাদের ঠিকানায়। সঙ্গে ঠিকানা দিও। ঠিকানা : বিভাগীয় সম্পাদক, ডাংগুলি বাংলাদেশ প্রতিদিন প্লট নং- ৩৭১/এ, ব্লক-ডি বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, ঢাকা ইমেইল : danguli71@gmail.com
up-arrow