Bangladesh Pratidin

যানজট

যানজটে একাকার শহরের রাস্তা, দেশে নেই একদম মানুষের আস্থা।   কাঠফাটা রোদে সব ঝলসানো চিত্র, গরম আর গাদাগাদি মনে হয় মিত্র।   পথিকের ঠেলাঠেলি চাপাচাপি বেশতো, পায় হেঁটে গরমেই জীবনটা শেষ তো।   ঘামে ভিজে বাড়ি ফেরা নিত্য কর্ম, এভাবেই বুঝে আসে গরমের মর্ম।

দিলাম রাতের শিশির

মাঠ হয়ে যায় সবুজ শাড়ি বাতাস তোলে ঢেউ আমন পাতায় রোদের ঝিকিমিকি দেখতে ডাকে কেউ- ঘরে বসেও ডাকটা শুনি ঠিকই পাইনা ডাকের লোক জানলা খুলে সবুজ মাঠে আটকে রেখে চোখ— ভাবতে থাকি খুব দুপুর বিকেল সন্ধ্যা শেষে সূর্য ডোবে মলিন হেসে রাত্রি নামে চুপ যে জন আমায় দেখতে ডাকে বাংলাদেশের রূপ তার সে নামে রাতের শিশির দিলাম টাপুর…
খোকার ঘুড়ি

খোকার ঘুড়ি

নীল আকাশে উড়ছে দেখি ছোট্ট খোকার ঘুড়ি মুক্ত স্বাধীন পাখিরা সব করছে উড়াউড়ি। ভীষণ খুশি লাগছে তখন ছোট্ট খোকার মনে হঠাৎ…

ফড়িং ছানা

ধানের ক্ষেতে ফড়িং ছানা গায়ছে গানা দূরে যেতে মায়ের মানা তিড়িং বিড়িং নাড়ছে ডানা ফড়িং ছানা যায় না দূরে নাচছে কেবল মাঠটি জুড়ে ফড়িং ছানা মায়ের কাছে থাকে দুই গালে তার মায়ের আদর মাখে।

ফুলের দল

তোমরা শিশু, তোমরা কাননের সদ্য ফোটা ফুল তোমরা আগামীর যে আলো কর না তাই যে ভুল।   আঁধারে তোমরা জ্বালাবে বাতি দূর যে করবে কালো মিথ্যার পাহাড়ে তোমাদের পরশে ফুটবে সত্যের আলো।   তোমরা সতেজ ফুলের পাপড়ি তোমার ফুলের দল বিশ্বটাকে ঘুরে দেখবো এবার চল-রে নবীন চল।

মন্দা

খুকির এখন পড়াশোনায় ভীষণ মনোযোগ কদিন আগেও ছিল না সে মোটেও পড়ার লোক। হঠাৎ? খুকির শখ হয়েছে প্রথম হবে ক্লাসে ভূগোল গণিত সব বিষয়ে পাস হবে এ-প্লাসে। তাই তো খুকি পড়তে বসে সকাল বিকেল সন্ধ্যা দুষ্টোমিতে খুকির এখন চলছে খানিক মন্দা।

লিখতে পারো তুমিও

ছোট্ট বন্ধুরা, তোমাদের জন্যই এই আয়োজন। ছড়া-কবিতা-গল্প লিখে পাঠাও আমাদের ঠিকানায়। সঙ্গে ঠিকানা দিও। ঠিকানা : বিভাগীয় সম্পাদক, ডাংগুলি বাংলাদেশ প্রতিদিন প্লট নং- ৩৭১/এ, ব্লক-ডি বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, ঢাকা ইমেইল : danguli71@gmail.com
up-arrow