Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : শনিবার, ২৫ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৪ জুন, ২০১৬ ২৩:৩৪
চার লেন সড়ক
যানজটের ভোগান্তি কমাবে

ঈদের আগেই উদ্বোধন হতে যাচ্ছে ঢাকা-চট্টগ্রাম এবং জয়দেবপুর-ময়মনসিংহ ফোর লেন। দেশের সবচেয়ে ব্যস্ত দুই মহাসড়ক ফোর লেনে পরিণত হওয়াকে জাতির জন্য ‘ঈদ উপহার’ হিসেবেও দেখা হচ্ছে।

ফোর লেনের কল্যাণে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে মাত্র সাড়ে ৪ ঘণ্টায় পৌঁছানো যাবে। জয়দেবপুর থেকে ময়মনসিংহে যাওয়া যাবে মাত্র ১ ঘণ্টায়। ঈদের আগে দুই মহাসড়কে যে যানজট লাগে এবার তা থেকে রেহাই পাওয়া যাবে বলেও আশা করা হচ্ছে। আগামী ২ জুলাই প্রধানমন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে দুইটি ফোর লেন সড়কের উদ্বোধন করবেন। এ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ককে বলা হয় জাতীয় অর্থনীতির লাইফ লাইন। ২০১০ সালে বাংলাদেশ ও জাপান সরকারের যৌথ অর্থায়নে এ প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। ১৯২ কিলোমিটার দীর্ঘ মহাসড়কের দুই পাশ সম্প্রসারণ করে চার লেন করার মহাযজ্ঞটি সম্পন্ন করতে ১০টি প্যাকেজে ভাগ করে দেশি-বিদেশি তিনটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে কাজ দেওয়া হয়। প্রকল্পটির সিংহ ভাগ কাজ সম্পন্ন করার দায়িত্ব দেওয়া হয় একটি চীনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে। পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০১৩ সালের জানুয়ারিতে কাজ শেষ করার কথা থাকলেও নানা প্রতিবন্ধকতায়  তা বাস্তবায়নে দ্বিগুণ সময় ব্যয় হয়েছে। ফলে প্রকল্প বাস্তবায়নের ব্যয়ও বেড়েছে বিপুলভাবে। ৩ হাজার ৭৯০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত চার লেন মহাসড়কের কারণে ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে নিত্য যানজটের অভিশাপ থেকে রেহাই পাওয়া যাবে। ২০১০ সালে হাতে নেওয়া ৮৭ দশমিক ১৮ কিলোমিটার দীর্ঘ জয়দেবপুর-ময়মনসিংহ চার লেন সড়কের নির্মাণ কাজ ২০১৩ সালের জুনের মধ্যে সম্পন্ন করা হবে বলে লক্ষ্যমাত্রা ধার্য করা হয়েছিল। কিন্তু নির্মাণ কাজের শম্বুক গতিতে প্রায় তিন বছর বেশি লেগেছে। যে মহাসড়ক নির্মাণের প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছিল ৯৯২ কোটি টাকা তার নির্মাণ ব্যয় প্রায় দ্বিগুণ ১ হাজার ৮১৫ কোটি ১২ লাখে গিয়ে ঠেকেছে। দুই মহাসড়ক সম্প্রসারণ বা চার লেনে উন্নীত করা জাতির জন্য এক সুসংবাদ হলেও সময় মতো বাস্তবায়ন করতে না পারা এবং এ কারণে নির্মাণ ব্যয় বেড়ে যাওয়া এক জাতীয় লজ্জার ঘটনা। ভবিষ্যতে যে কোনো উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে নির্ধারিত সময়ে তা যাতে বাস্তবায়িত হয় সে দিকে নজর রাখতে হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow