Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৯ জুন, ২০১৬ ২৩:৪০
স্মরণ
খতিব উবায়দুল হক
খতিব উবায়দুল হক

আমার বাবা জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের সাবেক খতিব মরহুম মাওলানা উবায়দুল হক। তিনি ২৪ রমজান ৬ অক্টোবর ২০০৭ সালে আমাদের ছেড়ে চলে গিয়েছেন রাব্বুল আলামিনের সান্নিধ্যে।

বাবার স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে মনে পড়ে ইসলামী উম্মাহর চেতনায় শরিয়াহ মোতাবেক তার ভূমিকা ও অবদানের কথা। সব স্তরের সব পেশার মানুষের সঙ্গে বাবার ছিল হৃদয়ের সম্পর্ক। তিনি ছিলেন দীনই পরিমণ্ডলের বটবৃক্ষ। আন্তর্জাতিক খতমে নবুওয়্যাতের সংগঠক ও প্রধান ছিলেন তিনি।

আপসহীন ভূমিকার কারণে বাবা হয়েছিলেন জনতার অভিভাবক। আমি মনে করি জাতীয় প্রয়োজনে বাবার জীবনীর সঠিক মূল্যায়ন করা দরকার। মৃত্যুর দিন পর্যন্ত বাবা প্রধান কয়েকটি ইসলামী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। মৃত্যুতে নির্ভীক আলেম দুর্লভ হয়ে পড়েছে। এই অভাব কবে পূরণ হবে আল্লাহই ভালো জানেন। যার মাধ্যমে পৃথিবীতে আগমন তাকে কখনো ভোলা যায় না। কান্নার ভিতর দিয়ে অনুভব করি বাবাকে। বাবা যখন বাতাসের ঝাপটা গায়ে লাগে তখন মনে হয় তুমি এসেছ। রোদের স্নিগ্ধতা বুঝিয়ে দেয় বাবা-মা হারিয়ে যায় না। প্রতিদিন বাবা-মা কোনো না কোনো রূপে এসে হাজির হয় সন্তান কেমন আছে তা দেখতে।

বাবা অনেক দূরে চলে গেছ আমাদের ছেড়ে, তবুও মনে হয় আমাকে দেখছ। তাই তো তোমার সঙ্গে রোজ রাতে একাকী কথা বলি, তুমি কি শুনতে পাও? বাবা কেমন আছ? আশা করি আল্লাহর অশেষ রহমতের ছায়াতলে অনেক ভালোই আছ।   আল্লাহর দরবারে দোয়া করি আল্লাহ যেন বাবার সব নেক আমলকে কবুল করেন এবং জান্নাতের সুউচ্চ মাকাম দান করেন। আমিন।

ইমরানা হক (বেবী)

এই পাতার আরো খবর
up-arrow