Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০৯
যানজট নগরজুড়ে
রাজপথে অবৈধ দখলদারিত্ব মূলত দায়ী

ঈদকে সামনে রেখে রাজধানী পরিণত হচ্ছে যানজটের নগরীতে। ভ্যাপসা গরমে যানজটের থাবা রোজাদারদের জন্য বাড়তি ভোগান্তি সৃষ্টি করছে।

সবারই জানা যানজট এখন শুধু বিশেষ কোনো মাসের নয়, সারা বছরের সমস্যা এবং রাজধানীবাসীর জন্য এক বিড়ম্বনার নাম। কোনো শহরে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক রাখতে হলে এর আয়তনের কমপক্ষে ২০ শতাংশ রাস্তা দরকার। ঢাকায় রাস্তার পরিমাণ ৭ থেকে ৮ শতাংশ হওয়ায় তা যানজটের বড় কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সময় ও নদীর স্রোত কারও জন্য বসে থাকে না। যানজটের কারণে যে সময়ক্ষেপণ ঘটছে, অর্থনীতির বিচারে তার ক্ষয়ক্ষতি ভয়াবহ। এ সমস্যা উৎপাদনশীলতাকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে। দেশের রপ্তানি-বাণিজ্যকে অনিশ্চিত করে তুলছে। বিদেশিরা বাংলাদেশের রাজধানীকে অস্বস্তির দৃষ্টিতে দেখে যানজটের কারণে। বলা যেতে পারে, যেসব কারণে বাংলাদেশে বিদেশি বিনিয়োগ বিঘ্নিত হচ্ছে যানজট তার অন্যতম। এ সমস্যা সমাধানে সরকারের উদ্যোগ থাকলেও তার অবস্থা কাজীর গরু কেতাবে আছে গোয়ালে নেই-এর মতো। যোগাযোগ মন্ত্রণালয় রাজধানীর যানজট সমস্যা সমাধানে ফ্লাইওভার চালুসহ নানা প্রকল্প গ্রহণ করলেও প্রতিটি প্রকল্পেই রয়েছে সমন্বয়হীনতা। যানজট নিরসনের চেয়েও পকেট পূর্তির উদ্দেশ্য বেশি সক্রিয় হয়ে ওঠায় সঠিক সময়ে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন কঠিন হয়ে দাঁড়াচ্ছে। আমরা মনে করি, রাজধানীর যানজট নিরসনে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে ও মেট্রোরেল চালু এবং ফ্লাইওভার নির্মাণই যথেষ্ট নয়, ট্রাফিক ক্ষেত্রে সুস্থ ব্যবস্থাপনাও নিশ্চিত করতে হবে। রাজধানীর ফুটপাথ ও রাজপথ অবৈধ দখলমুক্ত করতে হবে। যেখানে সেখানে পার্কিং বন্ধ ও চলাচল ক্ষেত্রে শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠায় উদ্যোগী হতে হবে। রাজধানীর ফুটপাথ অবৈধ দখলমুক্ত করা সম্ভব হলে যানজট অন্ততপক্ষে ৫০ ভাগ নিরসন করা সম্ভব। যানজট জাতীয় অগ্রগতির পথে প্রতিবন্ধক হয়ে দাঁড়িয়েছে। উৎপাদনের জন্য যে সময় ব্যয় হওয়ার কথা তা গিলে খাচ্ছে এ সমস্যা।   ফলে এ সমস্যা সমাধানে আন্তরিক প্রয়াসই এখন সরকারের লক্ষ্য হওয়া উচিত। বিশেষত রমজানে রোজাদার মানুষকে ভোগান্তির হাত থেকে রক্ষা করতে ট্রাফিক ব্যবস্থায় শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠা করা হবে, আমরা তেমনটিই দেখতে চাই।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow