Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : সোমবার, ৪ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৪ জুলাই, ২০১৬ ০০:০৭
রুখে দাঁড়াও বাংলাদেশ
একাত্তরের মতো প্রতিরোধ গড়ে তোল

রুখে দাঁড়াও বাংলাদেশ। জঙ্গিবাদের থাবা ঠেকাতে জেগে ওঠো আবারও একাত্তরের চেতনায়। গড়ে তোল জাতীয় ঐক্য। একাত্তরে বাঙালি জাতি এক হয়েছিল। ছিনিয়ে এনেছিল বাংলাদেশের স্বাধীনতা। ইয়াহিয়া, টিক্কা, রাও ফরমান আলী, নিয়াজীদের তারা অপমানজনক পরাজয়বরণে বাধ্য করেছিল। বাঙালি জাতি এখন সাড়ে চার দশক আগের মতোই এক কঠিন চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন। একাত্তরের পরাজিত শক্তির বশংবদরা লাল-সবুজ পতাকাকে নিষ্প্রভ করতে জঙ্গিবাদ নামের জংলিপনার চর্চায় রত। তাদের মদদে বিস্তৃত হচ্ছে এই ঘৃণ্য দৈত্যের অশুভ থাবা। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ হিসেবে বাংলাদেশের আকাশছোঁয়া সুনামকে তারা কেড়ে নিতে চাচ্ছে। এ উদ্দেশ্যে একের পর এক হামলা চালানো হচ্ছে সংখ্যালঘুদের ওপর।

অতিথিপরায়ণ জাতি হিসেবে বাঙালির জগেজাড়া সুনামকেও জঙ্গি নামের নরকের কীটরা প্রশ্নবিদ্ধ করতে চাচ্ছে। গুলশানের রেস্টুরেন্টে বর্বর ও নোংরা জঙ্গিদের হামলায় প্রাণ হারিয়েছে ২০ জন জিম্মি। যাদের মধ্যে অন্তত ১৭ জন বিদেশি। বরাবরই বাংলাদেশের মানুষের অতিথিপরায়ণতার প্রশংসা করেছে বিদেশিরা। সে প্রশংসায় আঘাত হেনেছে জঙ্গি নামের কুিসত দস্যুরা। বাংলাদেশে মেট্রোরেল স্থাপনে এসেছিলেন ছয় জাপানি। তাদের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে ধর্মান্ধ বিবেক বিকৃতরা। মনে হচ্ছে, বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রতিবন্ধক হিসেবে নিজেদের খাড়া করতে চাচ্ছে বিদেশি অপশক্তির এজেন্ট মধ্যযুগীয় বর্বরেরা। মাহে রমজানে ধার্মিক মানুষ যখন এশা ও তারাবির নামাজ আদায়ের জন্য মসজিদের দিকে যাচ্ছিল তখন বর্বর জঙ্গিরা গুলশানের রেস্টুরেন্টে গিয়েছিল মানুষ হত্যার জন্য। ইসলামে মানুষ হত্যা কবিরা গুনাহ। যে গুনাহের কোনো মাপ নেই। জঙ্গিরা নিরপরাধ মানুষকে হত্যা করে সে পাপ করেছে। শান্তির ধর্ম, মানবতার ধর্ম ইসলামের মর্যাদা কলুষিত করেছে অশান্তি ও অকল্যাণের প্রতিভূরা। বাংলাদেশের মানুষ যখন একাত্তরে অর্জিত রাজনৈতিক স্বাধীনতার ভিত্তিতে অর্থনৈতিক স্বাধীনতা মজবুত করার লড়াইয়ে লিপ্ত, তখন বিবেক বিক্রেতা ধর্মান্ধ বিদেশি অপশক্তির এজেন্টরা ১৬ কোটি মানুষের সে প্রয়াসকে প্রতিহত করার চক্রান্তে লিপ্ত। দেশকে অচিরেই মধ্যআয়ের দেশে পরিণত করতে হলে, উন্নত দেশে পরিণত হওয়ার স্বপ্ন জিইয়ে রাখতে হলে জঙ্গি নামের নোংরা জানোয়ারদের প্রতিহত করতেই হবে।   রুখে দাঁড়াতে হবে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের উপাসকদের বিরুদ্ধে। গড়ে তুলতে হবে জাতীয় ঐক্য।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow