Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২০ জুলাই, ২০১৬ ২৩:২০
ধর্মতত্ত্ব
আল্লাহর একাত্মবাদে বিশ্বাসী হতে হবে
মুফতি মুহাম্মদ আল আমিন
আল্লাহর একাত্মবাদে বিশ্বাসী হতে হবে

মহান আল্লাহ মানুষের সব গুনাহ ক্ষমা করলেও দুটি অপরাধ মাফ করবেন না। এক. আল্লাহর সঙ্গে কাউকে শরিক করার গুনাহ। দুই. কারও হক নষ্ট করার অপরাধ। তাই এ দুটি অন্যায় থেকে আমরা সবাই যেন বিরত থাকতে পারি। মহান আল্লাহর একত্ববাদ ও পবিত্রতা কোরআন শরিফের বহু আয়াতে বর্ণিত হয়েছে। এরশাদ হয়েছে, ‘হে মানব জাতি! ইবাদত কর তোমাদের রবের, যিনি তোমাদের ও তোমাদের আগের সব মানুষের সৃষ্টিকর্তা। এভাবেই তোমরা নিষ্কৃতি লাভের আশা করতে পার। তিনি তোমাদের জন্য মাটির শয্যা বিছিয়েছেন, আকাশের ছাদ তৈরি করেছেন, ওপর থেকে পানি বর্ষণ করেছেন এবং তার সাহায্যে সব রকমের ফসলাদি উত্পন্ন করে আহার জুগিয়েছেন। কাজেই এ কথা জানার পর তোমরা কোনো কিছুকেই আল্লাহর সমকক্ষ ও অংশীদার কর না। ’ সূরা আল বাকারাহ : ২১-২২। অপর আয়াতে এসেছে, ‘আল্লাহ ঘোষণা করেন, তিনিই একমাত্র মাবুদ। আর ফেরেশতাগণ এবং ন্যায়নিষ্ঠা জ্ঞানবান ব্যক্তিগণ ঘোষণা করেন যে, আল্লাহ ব্যতীত কোনো মাবুদ নেই, তিনি মহাপরাক্রমশালী ও প্রজ্ঞাময়। ’ সূরা আলে ইমরান : ১৮। অন্যত্র এসেছে, ‘এবং তোমরা কেবল আল্লাহর ইবাদত করবে, আর অন্য কোনো কিছুকেই তাঁর সঙ্গে শরিক করবে না। ’ সূরা আন্্ নিসা : ৩৬। কোরআন শরিফের অন্যত্র ঘোষিত হয়েছে, ‘হে মুহাম্মদ! বলুন আমি তো একজন মানুষ তোমাদের মতো। আমার প্রতি অহি নাজিল করা হয় এই মর্মে যে, এক আল্লাহই তোমাদের ইবাদতে উপযুক্ত। কাজেই যে তার রবের সাক্ষাতের প্রত্যাশী তার সৎকাজ করা উচিত এবং বন্দেগির ক্ষেত্রে নিজের রবের সঙ্গে কাউকে শরিক করা উচিত নয়। ’ সূরা আল কাহাফ : ১১০। অপর আয়াতে বলা হয়েছে, ‘আর (দেখ) তাঁর নিদর্শনসমূহের মধ্যে রয়েছে রাত ও দিন, সূর্য ও চন্দ্র। তোমরা সূর্যকে সিজদাহ করবে না, চন্দ্রকেও নয়। বরং সিজদাহ করবে একমাত্র সেই আল্লাহকে যিনি ওই সব সৃষ্টি করেছেন, যদি তোমরা একমাত্র তাঁরই ইবাদত করতে ইচ্ছুক হও। ’ সূরা হামীম সেজদাহ : ৩৭। আল্লাহ ছাড়া কারও ইবাদত যেন না করা হয় সে জন্য এরশাদ হচ্ছে, ‘হে আমার মুমিন বান্দাগণ! আমার এ জমিন হচ্ছে প্রশস্ত। অতএব, তোমরা একমাত্র আমারই বন্দেগি করতে থাক। ’ সূরা আনকাবুত : ৫৬। মানব সৃষ্টির উদ্দেশ্যই হলো আল্লাহ ইবাদত। এ বিষয়ে এসেছে, ‘আমি জিন ও মানব জাতিকে কেবল এ জন্যই পয়দা করেছি যে, তারা একমাত্র আমারই ইবাদত করবে। ’ সূরা আয যারিয়াত : ৫৬। আরও এসেছে, ‘আর সিজদার স্থানসমূহ একমাত্র আল্লাহর জন্যই নির্ধারিত। অতএব আল্লাহর সঙ্গে কাউকেই আহ্বান করবে না। ’ সূরা আল জিন : ১৮। আল্লাহ ইবাদত করলে নিশ্চিত কল্যাণ ও সফলতা। উভয় জগতে শান্তি। এরশাদ হচ্ছে, ‘হে ইমানদারগণ! মাথা নত কর, সিজদা কর এবং ইবাদত কর তোমাদের প্রভুর এবং সৎকাজ করতে থাক, তবেই তোমরা লাভবান হতে পারবে। সূরা আল হজ : ৭৭। ‘আর তোমাদের প্রভু বলেন : তোমরা সবাই আমাকেই এককভাবে ডাকবে, আমি তোমাদের ডাকে সাড়া দেব, যারা অহমিকার বশে আমার বন্দেগি করা অস্বীকার করে, তারা তো জাহান্নামে প্রবেশ করবে অতিশয় ঘৃণিত অবস্থায়। ’ সূরা আল মুমিন : ৬০।

লেখক : খতিব, সমিতি বাজার মসজিদ, নাখালপাড়া, ঢাকা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow