Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২০ জুলাই, ২০১৬ ২৩:২৫
রসুল (সা.)-এর সাহাবিদের মর্যাদা
মুফতি রেজাউল হক মো. আবদুল্লাহ

সাহাবি বলা হয় সাথী এবং সঙ্গীদেরকে। শরিয়ার পরিভাষায় সাহাবি বলা হয় ওই মহান ব্যক্তিবর্গকে যারা ইমানের সঙ্গে মহানবী (সা.)-এর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন এবং মুমিন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছিলেন। নববী উদ্যানের মুবারক পরিবেশে মুহাম্মদে আরাবি (সা.)-এর পুণ্যময় সান্নিধ্যে ওহিয়ে এলাহির পূর্ণ তত্ত্বাবধানে যারা তিলে তিলে গড়ে উঠেছিলেন তাদেরই বলা হয় সাহাবি। তারা সবাই ছিলেন কালিমামুক্ত। আর তারা সবাই রসুলের কাছ থেকে শিখেছিলেন সততা ও প্রকৃত সফলতা। তাই তো তাদের শানে পবিত্র কোরআনে এরশাদ হয়েছে, ‘তারাই সত্যবাদী, তারাই সফলকাম। ’ কোরআন কারিমের অন্য জায়গায় ঘোষণা করা হয়েছে, ‘তারা ওইসব মহান ব্যক্তি আল্লাহ যাদের অন্তরকে তাকওয়ার পরীক্ষায় উত্তীর্ণ করেছেন। তাদের জন্য রয়েছে ক্ষমা ও মহা পুরস্কার। ’ রসুলে আরাবি (সা.) সাহাবিদের মর্যাদা সম্পর্কে বলেন, ‘সর্বোত্তম যুগ হলো আমার যুগ, তার পরবর্তী যুগ সাহাবিদের যুগ। মহানবী (সা.) অন্য জায়গায় বলেন, ‘নিশ্চয়ই আল্লাহ আমাকে নবুওয়াতের জন্য এবং আমার সাহাবিদের আমি মুহাম্মদ (সা.) এর সঙ্গী-সাথী হওয়ার জন্য নির্বাচন করেছেন। ’ কোরআনে অন্যত্র আল্লাহতায়ালা এরশাদ করেন ‘আর যারা সর্বপ্রথম হিজরতকারী ও আনসারদের মাঝে এবং যারা তাদের অনুসরণ করেছে আল্লাহ তাদের প্রতি সন্তুষ্ট এবং তারাও তার (আল্লাহর) প্রতি সন্তুষ্ট। আর তাদের জন্য আল্লাহ প্রস্তুত রেখেছেন জান্নাত যার তলদেশে প্রবাহিত হতে থাকবে নহরসমূহ। সেখানে তারা থাকবে অনন্তকাল। আর এটাই হলো মহান সফলতা। ’ (সূরা : তাওবা, আয়াত-১০০)।

শুধু তাই নয়, কোরআনে পাকের অন্য স্থানে এরশাদ হয়েছে, ‘তিনিই তাদের মাঝে তাকওয়াহ ও খোদাভীতি সুদৃঢ় মজবুত করে দিয়েছেন। আর তারাই সর্বাধিক যোগ্য ও হকদার। ’ (সূরা : ফাতাহ-২৬)

আর প্রিয় নবী (সা.) সাহাবিদের মর্যাদা সম্পর্কে  আরও বলেন, ‘নিশ্চয় আল্লাহতায়ালা জগত্বাসীর মধ্য থেকে আমার সাহাবিদের নবী ও রসুলের পর নির্বাচিত করেছেন। ’ কোরআন ও হাদিসে আরও অসংখ্যবার তাদের মর্যাদা সম্পর্কে আলোচনা হয়েছে। এ কথা সুস্পষ্ট এবং প্রমাণিত যে নবী ও রসুলদের পরে সর্বোচ্চ মর্যাদার অধিকারী হলেন হজরত সাহাবায়ে কেরামরা, কোরআন ও হাদিসের আসল ব্যাখ্যা যদি আমাদের মানতে হয় তাহলে অবশ্যই সাহাবায়ে কেরামদের অনুসরণ ও অনুকরণ আবশ্যকীয় কারণ তারা রসুলের কাছ থেকে সরাসরি ইসলামকে শিখেছেন। আল্লাহপাক আমাদের সবাইকে সাহাবাদের মর্যাদা বুঝে তাদের অনুসরণ ও অনুকরণ করার তাওফিক দান করুন।

লেখক : প্রিন্সিপাল দারুল উলুম, মিরপুর, ঢাকা।

up-arrow