Bangladesh Pratidin

ফোকাস

  • চাটাইয়ে মুড়িয়ে প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় সম্মান!
  • কেরানীগঞ্জে বাচ্চু হত্যায় ৩ জনের ফাঁসি, ৭ জনের যাবজ্জীবন
  • ৩ মামলায় জামিন চেয়ে হাইকোর্টে খালেদার আবেদন
  • হালদা নদীর পাড়ের অবৈধ স্থাপনা ভাঙার নির্দেশ
  • আফগানিস্তানের বিপক্ষে টাইগারদের টি-টোয়েন্টি দল ঘোষণা
  • কাদেরের বক্তব্যে একতরফা নির্বাচনের ইঙ্গিত: রিজভী
  • কলারোয়া সীমান্তে স্বামী-স্ত্রীসহ ৩ বাংলাদেশিকে ফেরত দিল বিএসএফ
  • বিএনপি নির্বাচনে না এলেও গণতন্ত্র অব্যাহত থাকবে: কাদের
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৩১ আগস্ট, ২০১৬ ২৩:১২
ইতিহাস
সাহসী রাজা

পুলকেশী ঝিলেন প্রাচীন ভারতের এক সাহসী রাজা। মঙ্গলেশের পর ভ্রাতুষ্পুত্র কীতিবর্মণের পুত্র দ্বিতীয় পুলকেশী অন্ধ্ররাজ্যের সিংহাসনে আরোহণ করেন। তিনি এই বংশের সর্বশ্রেষ্ঠ রাজা ছিলেন। তিনি হর্ষবর্ধনের সমসাময়িক ছিলেন এবং তাকে পরাজিত করে দক্ষিণ ভারতের দিকে তার অগ্রগতি প্রতিহত করেন। তার বিজয়বাহিনী উত্তরে গুজরাট ও মালব থেকে দক্ষিণে কাবেরী নদী পর্যন্ত অগ্রসর হয়েছিল। কাঞ্চির পল্লবরাজ মহেন্দ্রবর্মণও তার কাছে পরাজিত হয়েছিল। সুদূর দক্ষিণ ভারতের চের, চোল ও পাণ্ড্য রাজ্যেও তার আদিপত্য বিস্তৃত হয়েছিল। এভাবে দ্বিতীয় পুলকেশী প্রায় সমগ্র দক্ষিণ ভারত তার রাজ্যভুক্ত করেন। কেউ কেউ বলেন, পারস্য সম্রাট দ্বিতীয় খসরুর সঙ্গে তার দূত বিনিময় হয়েছিল। বিখ্যাত পরিব্রাজক হিউয়েন সাঙ তার রাজ্য পরিদর্শন করে বল বিক্রম ও শাসন-প্রণালীর প্রশংসা করেছিলেন। দুর্ভাগ্যক্রমে তিনি ৬৪২ খ্রিস্টাব্দে কাঞ্চির পল্লব বংশীয় রাজা নরসিং বর্মণের সঙ্গে যুদ্ধে পরাজিত ও নিহত হন। দ্বিতীয় পুলকেশীর পুত্র প্রথম বিক্রমাদিত্য পিতার পরাজয় ও মৃত্যুর প্রতিশোধ গ্রহণ করার জন্য পল্লবদের রাজধানী কাঞ্চি অবরোধ করে পল্লবরাজ্যের ধ্বংসের পথ প্রশস্ত করেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow