Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২২:৫২
অসহনীয় যানজট
ফুটপাথ ও রাস্তা অপদখল বন্ধ হোক

ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে রাজধানী ঢাকা যানজটের কারণে অচল নগরীতে পরিণত হয়েছে। এমনিতেই ঢাকা গত তিন দশক ধরে যানজটের নগরী হিসেবেই পরিচিত।

রাজধানীর যানজটকে মানুষ ভাগ্যের লিখন বলে মেনেও নিয়েছে। কিন্তু ঈদুল আজহার প্রাক্কালে যানজটের অচলাবস্থা নাগরিকদের অকল্পনীয় ভোগান্তির কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। ঈদকে সামনে রেখে প্রতিবছরই বাড়তি যানজট অনিবার্য হয়ে দাঁড়ায়। মহাসড়কগুলোতেও প্রায়ই লেগে থাকে মহাযানজট। দেশের অগ্রগতিকে থামিয়ে দিচ্ছে এ ভয়ঙ্কর সমস্যা। সময়ের এক ফোঁড় আর অসময়ের দশ ফোঁড় সমান কথা। সময় ও নদীর স্রোত কারও জন্য বসে থাকে না। যানজটের কারণে যে সময় নষ্ট হচ্ছে অর্থনীতির বিচারে তা ভয়াবহ। এ সমস্যা উৎপাদনশীলতাকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে। দেশের রপ্তানি-বাণিজ্যকে অনিশ্চিত করে তুলছে। বিদেশিরা বাংলাদেশের রাজধানীকে অস্বস্তির দৃষ্টিতে দেখে যানজটের কারণে। যেসব কারণে বাংলাদেশে বিদেশি বিনিয়োগ নিরুৎসাহিত হচ্ছে যানজট তার অন্যতম। এ সমস্যা সমাধানে পূর্বসূরিদের মতো বর্তমান সরকারের উদ্যোগ থাকলেও তার অবস্থা কাজির গরু কেতাবে আছে গোয়ালে নেই-এর মতো। সরকার রাজধানীর যানজট সমস্যা সমাধানে ফ্লাইওভার চালুসহ নানা প্রকল্প গ্রহণ করলেও প্রতিটি প্রকল্পেই রয়েছে সমন্বয়হীনতা। একই সঙ্গে বলা যায়, রাজধানীর যানজট নিরসনে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে ও মেট্রোরেল চালু এবং ফ্লাইওভার নির্মাণই যথেষ্ট নয়, ট্রাফিক ক্ষেত্রে সুস্থ ব্যবস্থাপনাও নিশ্চিত করতে হবে। রাজধানীর ফুটপাথ ও রাজপথ অবৈধ দখলমুক্ত না হলে যানজটের থাবা ঠেকানো দুরূহ হয়ে পড়বে। যানজট নিরসনে যেখানে সেখানে পার্কিং বন্ধ ও চলাচল ক্ষেত্রে শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠায় উদ্যোগী হতে হবে। রাজধানীর ফুটপাথ অবৈধ দখলমুক্ত এবং যেখানে সেখানে পার্কিংয়ের প্রবণতা রোধ করা গেলে যানজট অন্ততপক্ষে ৯০ ভাগ নিরসন করা সম্ভব হবে। বিষয়টি সবার জানা থাকলেও ফুটপাথ অপদখলের সঙ্গে রাজনৈতিক টাউট, মাস্তান ও প্রশাসনের উেকাচভোগীদের স্বার্থ থাকায় তাদের নিরস্ত করতে কেউ এগিয়ে আসছে না। যানজট জাতীয় অগ্রগতির পথে প্রতিবন্ধক হয়ে দাঁড়িয়েছে। উৎপাদনের জন্য যে সময় ব্যয় হওয়ার কথা তা গিলে খাচ্ছে এ সমস্যা। গত এক দশকে যানজটে অপচয় হওয়া সময় ব্যবহৃত হলে বাংলাদেশ অনেক আগেই মধ্য আয়ের দেশে পরিণত হতো।   ফলে এ সমস্যা সমাধানে আন্তরিক প্রয়াসই এখন সরকারের লক্ষ্য হওয়া উচিত।

up-arrow