Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:১৪
লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ সর্বোত্তম জিকির
মাওলানা মুহম্মাদ সাহেব আলী

রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, সর্বোত্তম জিকির হলো লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ আর সর্বোত্তম দোয়া হলো আল-হামদুলিল্লাহ। (মিশকাত, তিরমিজি, ইবনে মাজাহ)।

লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ হলো দীনের ভিত্তিভূমি। যার ওপর দীনের সবকিছুর অবস্থান। তাওহিদের মূলসূত্রও এই কলেমায় নিহিত। এটি যে সর্বোত্তম জিকির তা সহজে অনুমেয়।

আল-হামদুলিল্লাহ যে সর্বোত্তম দোয়া এ বিষয়টিও স্পষ্ট। দয়ালু দাতাকে সন্তুষ্ট করতে এ দোয়ার কোনো বিকল্প নেই। দুনিয়ার জীবনে ক্ষমতাবান ব্যক্তির অনুগ্রহলাভের জন্য অনুগৃহীতরা তার প্রশংসা করে। সমস্ত ক্ষমতার উৎস এবং দয়ার ভাণ্ডার আল্লাহর প্রশংসার উদ্দেশ্যও থাকে তার অনুগ্রহ অর্জন করা।

মোল্লা আলী কারি (রহ.) বলেছেন, জিকিরের মধ্যে কলেমা তাইয়েবা যে সর্বোত্তম তাতে সন্দেহের বিন্দুমাত্র অবকাশ নেই। এটি হলো দীনের ভিত্তি যার ওপর পুরো দীন প্রতিষ্ঠিত। এটি এমন এক পবিত্র কলেমা যাকে ঘিরে দীনের চাকা আবর্তিত হয়। এ কারণেই সুফি ও আরেফরা এ কলেমার প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দেন এবং এ কলেমার জিকির বেশি বেশি করার তাগিদ দেন।

রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন, একবার মুসা (আ.) আল্লাহর দরবারে আরজ করে করেন, হে আল্লাহ! আমাকে এমন কোনো ওজিফা শিখিয়ে দিন যার সাহায্যে আমি আপনাকে স্মরণ করব এবং আপনাকে ডাকব। আল্লাহ তাকে নির্দেশ দিলেন লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ পড়তে থাকো। হজরত মুসা (আ.) আরজ করলেন, হে আমার রব! আমি তো এমন একটি বিশেষ জিনিস চেয়েছি যা একমাত্র আমাকে দান করা হয়। ইরশাদ হলো, হে মুসা! সাত তবক আসমান ও সাত তবক জমিনকে যদি এক পাল্লায় রাখা হয় আর তার অন্য পাল্লায় লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ রাখা হয়, তবে লা ইলাহা ইল্লাল্লাহের পাল্লাই ভারী হবে (নাসাই, ইবনে হিব্বান, হাকেম)। লা ইলাহা ইল্লাল্লাহর গুরুত্ব আল্লাহর কাছে কত বেশি উপরোক্ত হাদিসটি তারই প্রমাণ। দীনের রশি শক্ত করে আঁকড়ে ধরতে আল্লাহ আমাদের এই কলেমা বেশি বেশি ধারণ করার তাওফিক দিন। সর্বশক্তিমান আল্লাহ তার কাছে কৃতজ্ঞতা স্বীকারে আমাদের বেশি বেশি আল-হামদুলিল্লাহ পাঠের তাওফিক দিন।

লেখক : ইসলামী গবেষক।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow