Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০৮
সততা একটি মহৎ মানবিক গুণ
হাফেজ মোহাম্মদ ওমর ফারুক
সততা একটি মহৎ মানবিক গুণ

সততা, সত্যনিষ্ঠা ও সত্যবাদিতা একটি মহৎ মানবিক গুণ। প্রকৃত মানুষ বা ইনসানে কামেল হওয়া যায় না যেসব গুণ ছাড়া, সততা তন্মধ্যে অন্যতম। এ সততা রক্ষা করতে হয় প্রতিনিয়ত চলনে-বলনে, আচার-আচরণে, আমানতদারিতায়। জীবনের সর্বক্ষেত্রে এ নৈতিক গুণ অর্জন করতে হয়। জীবনের পরতে পরতে অনুশীলন করতে হয়। একটি মহৎ মানবিক গুণ হিসেবে নিজ নিজ চরিত্রে একে প্রতিস্থাপন করতে হয় এবং তাকে সংরক্ষণ করে চলতে হয়। বিষয়টি জীবনঘনিষ্ঠ, প্রাত্যহিক চর্চার ও অনুশীলনের। সৎ মানুষের মর্যাদা পৃথিবীর তাবৎ মানবগোষ্ঠী দিয়ে থাকে। তার সম্মান সবার কাছে স্বীকৃত ও প্রতিষ্ঠিত। মুমিন মুসলিমের জন্য সততা এক অপরিহার্য গুণ। আল-কোরআনে ইরশাদ হয়েছে— ‘হে মুমিনগণ! তোমরা আল্লাহকে ভয় কর এবং সত্যানুসারীদের সঙ্গী হও। ’ (সূরা তাওবা : ১১৯)।

ইরশাদ হয়েছে— ‘যদি তারা সত্য বলত তবে তা তাদের জন্য উত্তম হতো। ’ (সূরা মহাম্মদ : ২১)।

ইরশাদ হয়েছে— ‘সত্যবাদীদের তাদের সত্যকথনের জন্য আল্লাহ প্রতিদান দেবেন। ’ (সূরা আহযাব : ২৪)।

মানবজীবনে সততা অবলম্বন স্রষ্টার নির্দেশ। তার নির্দেশ লঙ্ঘন করার পরিণাম ভয়াবহ। স্রষ্টার কাছে জীবনের হিসাব দেওয়া ও জবাবদিহিতার ভয় জাগরূক রাখা সততা অবলম্বনের জন্য সহায়ক। একই সঙ্গে বিষয়টিকে ব্যবহারিক জীবনে প্রয়োগ করার জন্য অনুশীলন প্রয়োজন এবং সেক্ষেত্রে সত্যবাদীদের সঙ্গে উঠা-বসা, তাদের সাহচর্য, তাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রাখা খুবই উপযোগী।

সততা ব্যক্তি মানুষকে উন্নত করে গ্রহণযোগ্যতা ও উপযোগিতা বৃদ্ধি এবং মহিমান্বিত করে। সততা মানুষকে মুক্তি দেয়। সততা অবলম্বনের জন্য ইহকালীন এবং পরকালীন পুরস্কার ও প্রাপ্তি আছে এবং এটাই সঙ্গত, জীবনে সততা অবলম্বন না করে মুত্তাকী হওয়া যায় না— সততা অবলম্বন করলে একজন মানুষের মধ্যে আরও অনেক গুণ-বৈশিষ্ট্যের সমাবেশ ঘটে। আল-কোরআনে ইরশাদ হয়েছে— ‘শুধু তোমাদের চেহারাগুলো পূর্বমুখী ও পশ্চিমমুখী করা পুণ্য নয়। বরং পুণ্যবান হচ্ছে সে, যে বিশ্বাস করল আল্লাহকে! আখেরাতে, ফেরেশতা, কিতাব ও নবীগণকে এবং সম্পদ দান করল তার প্রতি ভালোবাসার আত্মীয়দের, এতিমদের, মিসকিনদের, প্রবাসী পথচারীদের ও দাস মুক্তির জন্য এবং সালাত কায়েম করল, জাকাত প্রদান করল এবং তারা যারা অঙ্গীকার করলে তাদের অঙ্গীকার পূর্ণকারী এবং বিদ্রূপ ও দুর্যোগ ও যুদ্ধকালে যারা সহনশীল। ওরাই তারা,  যারা সত্য বলেছে এবং শুধু ওরাই মুত্তাকী আল্লাহভীরু। ’ (সূরা বাকারা : ১৭৭)।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow