Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : রবিবার, ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৩১
নোবেল প্রাইজ
আফতাব চৌধুরী

নোবেল প্রাইজ কী করে আরম্ভ হলো? আলফ্রেড বার্নহার্ড নোবেলের নামইবা কেন এই পুরস্কারের সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে? এর কারণ, আলফ্রেড বার্নহার্ড নোবেল ১৮৩৩ সালে সুইডেনে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ছিলেন বিখ্যাত রাসায়নিক পণ্ডিত ও যন্ত্রশিল্পী।

তার সবচেয়ে বড় কীর্তি হলো ভয়ঙ্কর বিস্ফোরক পদার্থ আবিষ্কার, যার নাম হলো ডিনামাইট। পাহাড় বা অন্য বিরাট কঠিন জিনিস ভাঙার কাজে যে ডিনামাইট ব্যবহার হয় তাই নয়, যুদ্ধক্ষেত্রে এর প্রয়োজন আরও বেশি। যুদ্ধে ডিনামাইটের বিধ্বংসী ভূমিকা মনে রেখেইবা এর সাহায্যে যুদ্ধকালে অসংখ্য মানুষের জীবনহানি হতে পারে এটা বুঝতে পেরে আলফ্রেড গভীর মনোকষ্ট পান। তাই তিনি ১৮৯৫ সালে, মৃত্যুর এক বছর আগে নিজের হাতে উইল লিখে তার সম্পত্তির অধিকাংশ দিয়ে যান বিশ্বজগেক। তার সম্পত্তির পরিমাণ ছিল ৯২ লাখ ডলার। এই সঞ্চিত টাকা থেকেই ঘোষিত হলো নিম্নোক্ত বিষয়ে নোবেল পুরস্কার— পদার্থবিদ্যা, রসায়নশাস্ত্র, শারীরবিদ্যা বা চিকিৎসাশাস্ত্র, সাহিত্য ও শান্তিতে। এই হলো নোবেল প্রাইজ। সুইডেনের নোবেল ফাউন্ডেশন এই পুরস্কার দিয়ে থাকে। ১৯০০ সালের ২৯ জুন এই ‘নোবেল ফাউন্ডেশনে’র সৃষ্টি হয়। সংস্থাগুলোর নাম ও পুরস্কারের বিষয় হলো রয়াল সুইডিশ একাডেমি অব সায়েন্স (পদার্থবিদ্যা ও রসায়নশাস্ত্র), রয়াল ক্যারোলিন ইনস্টিটিউট (শারীরবিদ্যা বা চিকিৎসাশাস্ত্র) এবং সুইডিস সাহিত্যে একাডেমি (সাহিত্যে)। সব মিলিয়ে এই সংস্থাগুলোর মোট সভ্য সংখ্যা ২৪০। ১৪০ জন সুইডেনবাসী আর ১০০ জন বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানী আর বড় বড় গবেষণাগারের পরিচালকদেরও পরামর্শ নেওয়া হয় এই পুরস্কারটি দেওয়ার জন্য।   

লেখক : সাংবাদিক-কলামিস্ট

এই পাতার আরো খবর
up-arrow