Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : শনিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৩৭
দক্ষিণাঞ্চলের বাস ধর্মঘট
এসএসসি পরীক্ষার্থীদের দুর্ভোগ কাম্য নয়

দেশে যখন এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা চলছে তখন দক্ষিণাঞ্চলের আট রুটের বাস ধর্মঘটকে দুর্ভাগ্যজনক বলেই অভিহিত করা যায়। এ ধর্মঘটসংশ্লিষ্ট বাস মালিক ও শ্রমিক নেতাদের সামাজিক দায়বোধ ও কাণ্ডজ্ঞান সম্পর্কেও সংশয় সৃষ্টি করেছে।

তারা ধর্মঘটে নেমেছেন মহাসড়ক ও আঞ্চলিক সড়কে ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল ও থ্রি হুইলার চলাচল বন্ধের দাবিতে। এ দাবি আদায়ে তারা এসএসসি এবং সমমানের পরীক্ষা চলার সময়কে বেছে নেওয়ার যে অবিমৃষ্যকারিতা দেখিয়েছেন তা কোনো সভ্য সমাজে কল্পনা করাও কঠিন। ধর্মঘটের ফলে গত দুই দিন এসব রুটে চলাচলকারী সাধারণ যাত্রীদের চরম দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে। যার মধ্যে পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরাও আছেন। মহাসড়কে থ্রি হুইলারসহ এ-জাতীয় যানবাহন চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ এবং সড়ক দুর্ঘটনার পেছনে তা অন্যতম কারণ হিসেবেও বিবেচিত। তবে ধর্মঘট আহ্বানকারীরা ধর্মঘট আহ্বান করেছেন সংশ্লিষ্ট রুটগুলোয় ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল এবং থ্রি হুইলারগুলো তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে ওঠার কারণে। ধর্মঘটের ফলে কুয়াকাটার পর্যটকরা সমূহ সংকটে পড়েছেন। কোনোরকম পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই হঠাৎ ধর্মঘটে নামার ঘটনা তাদের বিপাকে ফেলেছে। গত বৃহস্পতিবার এসএসসি পরীক্ষা শেষে কোনো যানবাহন না থাকায় তাদের হেঁটে বাড়ি ফিরতে হয়েছে। যাদের বাড়ি দূরে তাদের দুর্ভোগের বিষয়টি সহজে অনুমেয়। কথায় কথায় ধর্মঘট ডাকা যে দেশের যানবাহন মালিক ও শ্রমিকদের মজ্জাগত অভ্যাস সে বিষয়টি সবার জানা। কিন্তু মহাসড়ক ও আঞ্চলিক সড়কে ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল ও থ্রি হুইলার চলাচল বন্ধের দাবিতে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা চলার সময় ধর্মঘটে নামার যে অবিবেচনাপ্রসূত কর্মকাণ্ডে তারা নিজেদের জড়িয়েছেন, তা শুধু অগ্রহণযোগ্যই নয়; নিন্দনীয়। এ অগ্রহণযোগ্য ধর্মঘট প্রত্যাহার করে সংশ্লিষ্ট দাবিগুলোর ব্যাপারে তারা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন, আমরা এমনটিই দেখতে চাই। মানুষের দুঃখকষ্ট সৃষ্টির অশুভ অভ্যাস বাদ দিয়ে নিজেদের দাবির প্রতি তাদের সমর্থন আদায়ে তারা মনোযোগী হবেন, এমনটিই প্রত্যাশিত।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow