Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : বুধবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৩৬
ধর্মতত্ত্ব
বাংলাদেশে ইসলাম প্রচার
মুফতি এহসানুল হক জিলানী

ইতিহাস সাক্ষ্য দেয় যে, রসুলুল্লাহ (সা.)-এর দুজন সাহাবি বাণিজ্যিক ও দাওয়াতি সফরে চীন যাওয়ার যাত্রাবিরতি করেছিলেন এবং সমুদ্রতীরে উঠে বিশ্রাম গ্রহণ করেছিলেন।   সে সূত্রে এ অঞ্চলে ইসলামের বাণী প্রচার করেছিলেন।

স্থানীয় অধিবাসীরা তাদের মাধ্যমে ইসলাম গ্রহণ করেন। তাদের কাছ থেকে ইসলামের দীক্ষা নিয়ে তারা মাতৃভাষায় ইসলাম প্রচার করতে শুরু করেন। বাংলা ভাষায় ইসলাম প্রচারের শুরু সেই থেকেই। এরপর অব্যাহত গতিতে চলমান হয়েছে, সেই প্রচার ধারা। পীর আউলিয়া, সুফি দরবেশ, ওয়ায়েজ মুবাল্লিগণের দরদি মনে জান কোরবান প্রচারণার ফলে জনগণ দলে দলে ইসলামের দুয়ারে আশ্রয় নেয়। যার বদৌলতে আজ বাংলাদেশ বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম মুসলিম রাষ্ট্র। বাঙালি মুসলমানগণ শুধু নামে নয় কর্মে এবং বাস্তবে ইসলামের অনুসারী বলে স্বীকৃতি পেয়েছে। এর মূলে রয়েছে বাংলা ভাষায় ইসলামের ব্যাপক দাওয়াতি প্রচার-প্রচারণা। সুফি দরবেশগণ তাদের তরীকতি মাহফিলের মাধ্যমে খতিব ইমামগণ তাদের খুতবা, বক্তৃতার মাধ্যমে শিক্ষক শিক্ষাবিদগণ তাদের শিক্ষাদান ও শিক্ষাবিষয়ক কার্যক্রমের মাধ্যমে লেখক লেখনীর মাধ্যমে এবং সব পর্যায়ের প্রচার কর্মীগণ নিজ নিজ অবস্থান থেকে ইসলাম প্রচার নিঃস্বার্থ শ্রম সাধনা করে আসছেন আবহমান কাল থেকে। অবশ্য বাঙালি জনগণের রাষ্ট্রীয় স্বাধীনতা অর্জনের পূর্ব পর্যন্ত বাংলাভাষা রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি পায়নি বলে বাংলায় ইসলাম প্রচারে তখন সরকারি সহযোগিতা তেমন উল্লেখযোগ্য ছিল না। ১৯৫২-এর ভাষা আন্দোলনের পথ বেয়ে ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশ স্বাধীন রাষ্ট্ররূপে প্রতিষ্ঠা লাভের পর বাংলাভাষা রাষ্ট্রীয় ভাষার মর্যাদা অর্জন করে এবং বাংলা ভাষায় ইসলাম প্রচার সরকারি আনুকূল্য পায়। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেন। বাংলা ভাষায় ইসলাম প্রচারের ইতিহাসে এটি একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ।

বর্তমানে বাংলা ভাষায় ইসলাম প্রচার : বাঙালি জাতি এখন বাংলা ভাষায় ইসলাম প্রচারের স্বর্ণযুগে উপনীত হয়েছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন তাফসির, হাদিস, ফিকহ, ইতিহাস ইত্যাদি বিষয়ে আরবি, উর্দু, ফার্সি, ইংরেজি ভাষায় গুরুত্বপূর্ণ গ্রন্থগুলোর বঙ্গানুবাদ প্রকাশ, ক্ষেত্রবিশেষে মৌলিক গ্রন্থ রচনা বিশ্বকোষ প্রণয়ন, মসজিদভিত্তিক পাঠাগার ও মক্তব স্থাপন ইত্যাদি বহুমুখী কার্যক্রমের মাধ্যমে বাংলা ভাষায় ইসলাম প্রচারে উল্লেখযোগ্য অবদান রেখে যাচ্ছে। রেডিও, টেলিভিশন ইসলামী অনুষ্ঠান বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য প্রচার, পেপার পত্রিকায় রচনা প্রবন্ধ প্রকাশ, স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও বিশ্ববিদ্যালয় পাঠ্যসূচিতে ইসলামী বিষয় অন্তর্ভুক্তি, মাঠে ময়দানে ওয়ায়েজ বক্তাগণের ওয়াজ নসিহত, পীর-মাশায়েখদের তালিম তালকান ইত্যাদি পদ্ধতিতে এখন বাংলা ভাষায় ইসলাম প্রচার চলছে তীব্রগতিতে। প্রাণচঞ্চল এই প্রচার প্রচারণায় মানুষের ইমান মজবুত হচ্ছে অমুসলিমরা ইসলামের প্রতি আকৃষ্ট হচ্ছে, ইসলামের মানবীয় বৈশিষ্ট্যগুলো উন্মোচিত হচ্ছে, সম্প্রীতি ও সাম্য প্রতিষ্ঠায় ইসলামের আহ্বান গ্রহণযোগ্যতা পাচ্ছে এবং মানুষের ইহকালীন ও পরকালীন কল্যাণ লাভের এই পথে শামিল হচ্ছে দলে দলে। এই ধারা অব্যাহত থাকুক সদা চলমান। আল্লাহতায়ালা তাওফিক দিন।   আমিন।

 লেখক : পেশ ইমাম, বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow