Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৭ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৬ মার্চ, ২০১৭ ২২:৫৭
শিক্ষানবিস চিকিৎসক ধর্মঘট
এ আচরণ মানবিক পেশায় মানায় না

শিক্ষানবিস চিকিৎসকদের দেশব্যাপী ধর্মঘট একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। চিকিৎসার মতো দায়িত্বশীল পেশার সঙ্গে যারা যুক্ত তারা কথায় কথায় ধর্মঘট বা কর্মবিরতির আশ্রয় নেবেন, হাসপাতালের রোগীদের জিম্মি করে মিছিল-মিটিং করবেন তা কোনোভাবেই শোভনীয় নয়।

শিক্ষানবিস চিকিৎসকরা ধর্মঘটে নেমেছেন বগুড়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চারজন শিক্ষানবিসের প্রশিক্ষণ স্থগিত ও বদলির নির্দেশের বিরুদ্ধে। তারা বলছেন, এ শাস্তিমূলক পদক্ষেপ প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত ধর্মঘট চলবে। স্মর্তব্য, বগুড়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কয়েকজন শিক্ষানবিস চিকিৎসক একজন রোগীর স্বজনকে মারধর করেন। তাদের অবহেলায় ওই রোগীর মৃত্যু হয়। এ প্রেক্ষাপটে ঘটনার তদন্তে দোষী প্রমাণিত হওয়ায় চার শিক্ষানবিস চিকিৎসকের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়। এ শাস্তির বিরুদ্ধে সারা দেশের শিক্ষানবিস চিকিৎসকরা ধর্মঘটে নেমেছেন এবং আরও বড় কর্মসূচি ঘোষণার যে হুমকি দিচ্ছেন তা কোনোভাবেই চিকিৎসার মতো মানবিক পেশার সঙ্গে সশ্লিষ্টদের আচরণ হতে পারে না। শিক্ষানবিস চিকিৎসকরা যদি নিজেদের আইনের ঊর্ধ্বে এবং তাদের অবহেলার কারণে মানুষের মৃত্যু ডেকে আনাকে অধিকার বলে ভাবেন তবে তাতে আমরা হতাশ না হয়ে পারি না। শিক্ষানবিস চিকিৎসকদের মধ্যে যারা সরকারি মেডিকেল কলেজগুলোয় পড়েছেন তাদের শিক্ষাজীবনের ব্যয়িত অর্থের প্রায় পুরোটা এসেছে সরকারি তহবিল থেকে, সোজা কথায় দেশের সাধারণ মানুষের ট্যাক্সের টাকা থেকে। শুধু শিক্ষানবিস চিকিৎসকরাই নন, দেশের প্রায় সব চিকিৎসকের ক্ষেত্রে এটি এক সাধারণ সত্য হলেও তাদের এক বড় অংশের মধ্যে সাধারণ মানুষের প্রতি কৃতজ্ঞতাবোধ দূরের কথা কোনো দায়বোধ আছে কিনা তা নিয়ে প্রায়শই সংশয় সৃষ্টি হয়। শিক্ষানবিস চিকিৎসকরাও যে সে পথে হাঁটতে চান তা স্পষ্ট হয়েছে তাদের অসদাচরণে। চার দুর্বিনীত সহকর্মীর জন্য দেশের সব শিক্ষানবিস যেভাবে ধর্মঘটে নেমেছেন তা ধৃষ্টতার শামিল বললেও কম বলা হবে। আমরা আশা করব শিক্ষানবিস চিকিৎসকরা রোগীদের সেবা করার জন্য নেওয়া শপথের কথা মনে করে ধর্মঘটের ভুল সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসবেন। চার অন্যায়কারী সহকর্মীর সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে নিজেদের কলঙ্কিত করা কোনোভাবেই বাঞ্ছিত হওয়া উচিত নয়।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow