Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৭ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৬ মার্চ, ২০১৭ ২২:৫৮
মেয়াদোত্তীর্ণ গাড়ি আর নয়
ডিএসসিসির অভিযান প্রশংসনীয়

লক্কড়-ঝক্কড় যানবাহনের বিড়ম্বনা থেকে নগরবাসীকে রেহাই দিতে অভিযান শুরু করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন। ২০ বছরের পুরনো মেয়াদোত্তীর্ণ গাড়ির বিরুদ্ধে তারা এ অভিযান পরিচালনা করছে।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে পরিচালিত এ অভিযানের প্রথম দিনে গত রবিবার ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকায় সাত চালককে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড, ৭৫টি মামলা, ৮৭ হাজার ৪০০ টাকা জরিমানা এবং ফিটনেস না থাকায় দুটি বাস ও একটি লেগুনা জব্দ করে ডাম্পিং করা হয়েছে। বিআরটিএ’র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে পরিচালিত এ অভিযান সম্পর্কে মেয়র সাঈদ খোকন বলেছেন, লাইসেন্সবিহীন চালক, পুরনো ও মেয়াদোত্তীর্ণ যানবাহনের জন্য প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটছে। অসচেতন চালকদের বেপরোয়া আচরণ ও যেখানে সেখানে পার্কিংয়ের কারণে যানজট তীব্র আকার ধারণ করছে। প্রায়ই দুর্ঘটনায় সাধারণ নাগরিক জীবন হারাচ্ছে। যতক্ষণ পর্যন্ত মেয়াদোত্তীর্ণ গাড়ি ও অদক্ষ চালকদের নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব না হবে, ততক্ষণ এ অভিযান চলবে। যেসব চালকের লাইসেন্স ও আইন অনুযায়ী ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকবে না, তাদের আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে। আইন অমান্যকারী যত প্রভাবশালী হোক ছাড় দেওয়া হবে না। আইন মেনে যানবাহন পরিচালনার জন্য পরিবহন মালিকদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে মেয়র বলেছেন, পুরনো ঝুঁকিপূর্ণ বাস রাস্তায় চালাবেন না। যাদের শিক্ষাগত যোগ্যতা নেই, ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই, তাদের কাছে গাড়ি দেবেন না। স্মর্তব্য, ১৫ ফেব্রুয়ারি নগর ভবনে বিআরটিএ, ঢাকা মহানগর পুলিশ এবং ঢাকা জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক বৈঠকে ডিএসসিসি মেয়র সাঈদ খোকন এ অভিযান চালানোর সিদ্ধান্ত নেন। রবিবার দিনব্যাপী অভিযানে ভ্রাম্যমাণ আদালত ২০ বছরের পুরনো গাড়ি, গাড়ির ফিটনেস, রুট পারমিট, রেজিস্ট্রেশন, ট্যাক্স টোকেন, ড্রাইভিং লাইসেন্স সঠিক আছে কিনা তা পরীক্ষা করেছে। রাজধানীতে ফিটনেসবিহীন গাড়ির বিরুদ্ধে দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে পরিচালিত অভিযান একটি আশাজাগানিয়া ঘটনা। আমরা আশা করব ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উদ্যোগেও একই ধরনের অভিযান পরিচালিত হবে। নগরবাসীকে স্বস্তিদানের ক্ষেত্রে এ অভিযান ফলপ্রসূ হবে এমনটিও কাম্য।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow