Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১৫ মার্চ, ২০১৭ ২৩:৫৭
পুলিশ সম্মেলনের ঘোষণা
অপরাধ দমনে সহায়ক হোক

জঙ্গিবাদ দমনে ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ১৪টি দেশের পুলিশ প্রধানরা একযোগে কাজ করার ঘোষণা দিয়েছেন। জঙ্গিবাদসহ ১৭টি অপরাধ দমনে ১৪ দেশের পুলিশের একসঙ্গে কাজ করার ঐকমত্য এ অঞ্চলের দেশগুলোর জন্য সুখবর হিসেবে বিবেচিত হওয়ার দাবি রাখে।

স্মর্তব্য, জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদসহ আন্তঃদেশীয় অপরাধ দমনে রাজধানীতে তিন দিনের পুলিশ প্রধান সম্মেলনে ১৪ দেশের প্রতিনিধি ছাড়াও ইন্টারপোল, ফেসবুক ও যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা, আসিয়ানপোল প্রভৃতি সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা যোগ দেন। সম্মেলনে জঙ্গি দমন, মানব পাচার, অর্থনৈতিক অপরাধ, সন্ত্রাসী অর্থায়ন, মাদক পাচার রোধ, অবৈধ অস্ত্র চোরাচালান প্রতিরোধ, গোয়েন্দা তথ্য আদান-প্রদান এবং সাইবার অপরাধ নিয়ন্ত্রণ সম্পর্কে আলোচনা হয়। সম্মেলন শেষে জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদসহ আন্তঃদেশীয় অপরাধ দমনে পুলিশ প্রধানদের ‘যৌথ ঘোষণা’কে একটি বিরাট অর্জন হিসেবে দেখা হচ্ছে। পুলিশ প্রধানদের পক্ষ থেকে ফেসবুকের আইডি খুলতে ভোটার আইডি কার্ড কিংবা পাসপোর্ট ব্যবহারের প্রস্তাব দেওয়া হলেও ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তাতে সায় দেয়নি। এটি হতাশার হলেও এ সম্মেলন অপরাধ দমনে পারস্পরিক সহযোগিতার যে সুযোগ সৃষ্টি করেছে তা আশা জাগানিয়া ঘটনা। জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ একটি বিশ্বজনীন সমস্যা। দুনিয়ার কোনো জাতিই এ সমস্যা থেকে মুক্ত নয়। সেহেতু এ বিপদের  বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ লড়াইয়ের যে তাগিদ সৃষ্টি করেছে সদ্যসমাপ্ত পুলিশ প্রধানদের সম্মেলন তা আরও এগিয়ে নিতে হবে। সম্মেলনে পারস্পরিক যোগাযোগ বিশেষত অপরাধ দমনে একসঙ্গে কাজ করার যে ঐকমত্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছে তা একটি গুরুত্বপূর্ণ অর্জন। ফেসবুক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ১৪টি দেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর মতবিনিময়ের যে সূচনা সম্মেলনের মাধ্যম শুরু হয়েছে তা আরও এগিয়ে নেওয়া হবে বলে আমাদের বিশ্বাস। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বৈশিষ্ট্যে ব্যত্যয় না ঘটিয়ে কীভাবে এ প্রচার মাধ্যমকে অপরাধীদের কাছ থেকে দূরে রাখা যায় তা উদ্ভাবনে সদ্যসমাপ্ত সম্মেলন তাগিদ সৃষ্টি করবে আমরা এমনটিই দেখতে চাই।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow