Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ১৬ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ১৬ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : রবিবার, ১৯ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১৮ মার্চ, ২০১৭ ২৩:১৫
যোগাযোগ খাতের মহাযজ্ঞ
পাল্টে যাচ্ছে দেশের সনাতন চেহারা

দেশের উন্নয়নে যোগাযোগ খাত যে সবচেয়ে তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা রাখে তা একটি পরীক্ষিত সত্যি। উত্তরাঞ্চলের সাংবাৎসরিক মিনি দুর্ভিক্ষ ‘মঙ্গাকে’ ঠেকিয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধু সেতুর অবদান সবারই জানা।

রাজধানীর সঙ্গে যোগাযোগ ক্ষেত্রে পিছিয়ে পড়ায় এক সময় যে খুলনা বেল্টকে কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে রাজধানীর বিকল্প হিসেবে ভাবা হতো তার হতশ্রী অবস্থা এখন বোদ্ধাজনদের গবেষণার বিষয়। গত চার যুগে দক্ষিণ এশিয়ায় একমাত্র একটি নগরীর জনসংখ্যা কমেছে সেটি হলো খুলনা। যোগাযোগ ব্যবস্থাকে উন্নয়নের চাবিকাঠি বিবেচনা করে সরকার একের পর এক মেগাপ্রকল্প গ্রহণ করছে। আশা করা হচ্ছে যোগাযোগ খাতের বাস্তবায়নাধীন ছয় মেগা প্রকল্পসহ ১৪টি বৃহৎ প্রকল্পের বদৌলতে বদলে যাবে দেশের চেহারা। এর মধ্যে পদ্মা সেতুসহ একাধিক প্রকল্পকে সামনে রেখে পরিবর্তনের  হাওয়া বইছে দেশজুড়ে। বিশেষজ্ঞদের মতে, এসব প্রকল্প বাস্তবায়নের মধ্যদিয়ে দেশে বৈপ্লবিক পরিবর্তন ঘটবে, বাড়বে অর্থনৈতিক অগ্রগতি। স্বপ্নের পদ্মা সেতুর কাজের অগ্রগতিকে আশা জাগানিয়া বলে অভিহিত করা হচ্ছে। পুরোদমে এগিয়ে চলছে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের নির্মাণকাজ। পাশাপাশি শুরু হয়েছে মেট্রোরেলের লাইন-৬ এর নির্মাণকাজ। মেট্রোরেলের আরও কয়েকটি রুট নিয়ে চলছে সমীক্ষা। বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট প্রকল্পের অগ্রগতিও সন্তোষজনক। চীন-বাংলাদেশের যৌথ বিনিয়োগে কর্ণফুলী টানেলের নির্মাণকাজও উদ্বোধন হয়েছে গত বছরের অক্টোবরে। ঢাকা-চট্টগ্রাম এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণে চীন আগ্রহ প্রকাশ করায় কাঙ্ক্ষিত প্রকল্পটির নির্মাণকাজ শুরুর প্রস্তুতি চলছে। এর পাশাপাশি রাজধানীতে চলছে একাধিক ফ্লাইওভার নির্মাণের কাজ। যা শেষ হলে রাজধানীর যানজট অনেকটাই সহনীয় হয়ে উঠবে। এর পাশাপাশি যানবাহন চলাচলে শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠা হলে যানজটের নগরী হিসেবে ঢাকার যে দুর্নাম গড়ে উঠেছে তা থেকে রেহাই পাওয়া যাবে। সুন্দরবন, কুয়াকাটা, কক্সবাজার, দেশের হাওর এলাকা, পার্বত্য চট্টগ্রাম, নিঝুম দ্বীপ, সেন্টমার্টিন দ্বীপের সঙ্গে রাজধানীর যাতায়াত ব্যবস্থা দিনকে দিন সহজতর হয়ে উঠছে। পর্যটনের বিকাশে আরও উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা নিশ্চিত করার চেষ্টা চলছে। বিদেশি বিনিয়োগের ক্ষেত্রেও যোগাযোগ খাতের উন্নতি সহায়ক ভূমিকা রাখবে এমনটিও প্রত্যাশিত।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow