Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বুধবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২৩:৪৯
হাতিরঝিল সুরক্ষা
হাই কোর্টের নির্দেশনা প্রশংসনীয়

হাতিরঝিলের অবৈধ স্থাপনা সাত দিনের মধ্যে সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্ট। বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের হাই কোর্ট বেঞ্চের এ নির্দেশটি নান্দনিক স্থাপনা হাতিরঝিল-বেগুনবাড়ী প্রকল্পের বিকৃতি রোধে অবদান রাখবে বলে আশা করা যায়। পরিবেশবাদী ও মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস বাংলাদেশের এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাই কোর্ট একই সঙ্গে প্রকল্প এলাকায় যাতে নতুন করে কোনো অবৈধ স্থাপনা গড়ে উঠতে না পারে তা প্রতিনিয়ত তদারকি করতে রাজউক চেয়ারম্যান, ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার, হাতিরঝিল থানার ওসি ও প্রকল্প পরিচালককে নির্দেশ দিয়েছে। আদালতের এ আদেশ বাস্তবায়ন বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের দুই সপ্তাহের মধ্যে অগ্রগতি প্রতিবেদন জমা দিতে হবে। অন্তর্বর্তীকালীন নির্দেশনার পাশাপাশি হাই কোর্ট রুল জারি করে হাতিরঝিল-বেগুনবাড়ী প্রকল্পে লে- আউট প্ল্যানেলের বাইরে থাকা স্থাপনা নির্মাণ বন্ধে এবং লে-আউট অনুসারে হাতিরঝিল-বেগুনবাড়ী প্রকল্পকে রক্ষা করতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না তা জানতে চেয়েছে। পূর্তসচিব, রাজউক চেয়ারম্যান, ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার, সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী, হাতিরঝিল থানার ওসি ও প্রকল্প পরিচালককে চার সপ্তাহের মধ্যে এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। হাতিরঝিল প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছিল নগরবাসীকে স্বস্তিদায়কভাবে সময় কাটানো এবং নিঃশ্বাস নেওয়ার সুযোগ সৃষ্টি করতে। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ বন্ধুবান্ধব বা সপরিবারে এখানে সময় কাটায়। কিন্তু প্রকল্প এলাকার যেখানে-সেখানে রেস্টুরেন্টসহ অন্যান্য স্থাপনা গড়ে ওঠায় তা শুধু নান্দনিক এ প্রকল্পের সৌন্দর্যহানিই ঘটাচ্ছে না, খাবারের উচ্ছিষ্ট এবং পলিথিন ও প্লাস্টিকের বোতল যথেচ্ছভাবে ফেলে হাতিরঝিলের লেককে দূষিত করছে। যেখানে-সেখানে স্থাপনা গড়ে ওঠায় হাতিরঝিলে যানবাহন চলাচলের সময় দুর্ঘটনা বাড়ছে। ঘটছে প্রাণহানির ঘটনা। আমাদের বিশ্বাস, হাই কোর্টের তাত্ক্ষণিক নির্দেশনা বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ দ্রুত ব্যবস্থা নেবেন। পাশাপাশি এ নজরকাড়া স্থাপনার পরিবেশ রক্ষায় তারা যত্নবান হবেন— এমনটিও কাম্য।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow