Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : সোমবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২৩:৪৭
সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি
ইসির শতভাগ আন্তরিকতা কাম্য

আগামী ডিসেম্বরেই একাদশ সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। গণতন্ত্রে বিশ্বাসী অন্য সব দেশের মতো বাংলাদেশের আসন্ন নির্বাচনের আয়োজক ও পরিচালনার দায়িত্ব পালন করবে নির্বাচন কমিশন। স্বভাবতই নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী সব পক্ষের কাছে বিশেষত দেশবাসীর কাছে নির্বাচন কমিশনের গ্রহণযোগ্যতা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এ প্রত্যাশা পূরণে সব দল বিশেষত দেশের প্রধান দুই রাজনৈতিক দল যাতে নির্বাচনে অংশ নেয় সে বিষয়টি নিশ্চিত করা নির্বাচন কমিশনের কর্তব্যের মধ্যে পড়ে। নির্বাচনে কোনো দলের অংশগ্রহণ কিংবা বর্জন তাদের নিজস্ব বিষয়। কিন্তু নির্বাচন কমিশনের ওপর আস্থাহীনতার কারণে কোনো দল যাতে নির্বাচন বর্জনের পথে না যায় তা নিশ্চিত করা কমিশনের জন্য জরুরি। সংসদ বহাল রেখেই  নির্বাচন হবে, সেহেতু লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করা, অক্টোবরের পর নির্বাচনকালীন সরকারের সময় নিজেদের নিয়ন্ত্রণ আরোপ, ভোটের সময় সারা দেশের কর্মকর্তাদের মধ্যে সমন্বয়ের পাশাপাশি নিজেদের নিরপেক্ষতা প্রমাণে কমিশনকে যে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে তা মোকাবিলায় নিজেদের সক্ষমতা প্রমাণ করতে হবে। আগামী ৩০ অক্টোবর থেকে ২৮ জানুয়ারির মধ্যে একাদশ সংসদ নির্বাচন করার সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সে লক্ষ্যে জোর প্রস্তুতিও চলছে নির্বাচন কমিশনে। ৬ সেপ্টেম্বর চূড়ান্ত হয়েছে ভোট কেন্দ্রের তালিকা। সংসদীয় আসনের সীমানা অনুযায়ী ভোটার তালিকার সিডি প্রস্তুতির কাজও শেষ। ২৫ সেপ্টেম্বর ভোটার তালিকা মুদ্রণ শুরু হবে। চলতি মাসের মধ্যে নির্বাচনী আইন সংস্কারের কাজও শেষ করার প্রস্তুতি চলছে। আগামী সংসদ নির্বাচনে আংশিকভাবে ইভিএমে ভোট গ্রহণের জন্য গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) সংশোধনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন। নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন তা নিয়ে কমিশনে যেমন ভিন্ন মত রয়েছে তেমন প্রায় সব রাজনৈতিক দলেরও রয়েছে আপত্তি। যে কারণে ইভিএম ব্যবহার হলেও তা ক্ষুদ্র পরিসরে হওয়া উচিত। এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনের অতি আগ্রহে যাতে হিতেবিপরীত না হয় সেদিকে সতর্ক থাকতে হবে। নির্বাচন হলো জনগণের উৎসব। ভোটাররা যাতে নির্বিঘেœ ব্যালটের মাধ্যমে তাদের রায় দিতে পারেন তা নিশ্চিত করতে নির্বাচন কমিশনকে শতভাগ আন্তরিক হতে হবে। জাতীয় মর্যাদার স্বার্থেই একাদশ সংসদ নির্বাচন বিতর্কের ঊর্ধ্বে থাকবে এমনটিই দেখতে চায় দেশের ১৭ কোটি মানুষ।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow