Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২১ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:৫৩
কুয়েটে ভর্তি পরীক্ষা
এ মুহূর্তের প্রস্তুতি যেমন হবে
অপূর্ব আজাদ

আগামী ২৮ অক্টোবর খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় কুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। সুতরাং পরীক্ষার আর বেশিদিন বাকি নেই। ভর্তিযুদ্ধে জয়ী হতে হলে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি খুব দক্ষতা আর বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে নিতে হবে। এ স্বল্প সময় যে যত বেশি দক্ষভাবে ব্যবহার করতে পারবে সে ভর্তিযুদ্ধে অন্য সবার চেয়ে তত এগিয়ে যাবে।

পরীক্ষা পদ্ধতি ও মানবণ্টন :

ভর্তি পরীক্ষার সর্বমোট মান ৫০০। পরীক্ষা হয় গণিত, পদার্থ, রসায়ন ও ইংরেজি-এ চারটি বিষয়ে। প্রতিটি বিষয়ে ২৫টি করে মোট ১০০টি প্রশ্ন থাকে। গণিত, পদার্থ, রসায়ন-এ তিনটি বিষয়ে প্রতিটি প্রশ্নের মান ৬ এবং ইংরেজিতে প্রতিটি প্রশ্নের মান ২। প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য ২৫% মার্ক কাটা যায়। অর্থাৎ ৬ মার্কের প্রশ্ন ভুল করলে ১.৫ মার্ক এবং ২ মার্কের প্রশ্ন ভুল করলে ০.৫ মার্ক কাটা যাবে। সুতরাং একেবারে নিশ্চিত না হয়ে কোনো প্রশ্নের উত্তর না করাই শ্রেয়।

পরীক্ষার পূর্বপ্রস্তুতি :

এ বছর পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১২ হাজারের বেশি। আসন সংখ্যা ১০০৫। তাই বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৪টি বিভাগের একটিতে নিজের স্থান করে নেওয়ার জন্য দরকার সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা। পরীক্ষার আসন কুয়েট ছাড়াও আশেপাশের কয়েকটি স্কুল এবং কলেজে পড়তে পারে। এগুলোর দূরত্ব কুয়েট থেকে খুব বেশি নয়। পরীক্ষার নির্ধারিত সময়ের অন্তত ৩০ মিনিট আগে কেন্দ্রে পৌঁছানো উচিত। কোনো কারণে পরীক্ষার কেন্দ্র খুঁজে না পেলে ক্যাম্পাসের ভিতর ও বাইরে অনেক স্বেচ্ছাসেবী থাকবে যারা তোমাদের এ ব্যাপারে সঠিক দিকনির্দেশনা দেবে।

বিষয়ভিত্তিক প্রস্তুতি এবং কেন্দ্রে করণীয় :

কুয়েটের ভর্তি পরীক্ষার পদ্ধতি অন্যান্য প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কিছুটা ভিন্ন। শুধু নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্ন আসে বিধায় এর জন্য কিছুটা আলাদাভাবে প্রস্তুতি নিতে হয়। প্রথমে আসা যাক গণিত প্রসঙ্গে। এ বিষয়ে প্রতিটি প্রশ্নের মান ৬। সুতরাং একেবারে ছোট অঙ্ক আসার সম্ভাবনা যেমন কম তেমনি যেসব অঙ্ক সমাধান করতে অনেক বেশি সময় লাগে সেসব অঙ্ক আসার সম্ভাবনাও কম। অঙ্ক দ্রুত সমাধান করার জন্য ক্যালকুলেটর ব্যবহারে দক্ষ হতে হবে। যে যত দক্ষভাবে ক্যালকুলেটরের ব্যবহার করতে পারবে সে তত বেশি প্রশ্নের উত্তর দিতে পারবে। কুয়েটের ভর্তি পরীক্ষায় fx-991 ES এবং fx-991 ES PLUS এ দুটি মডেলের ক্যালকুলেটর ব্যবহার করা যাবে। প্রশ্নের উত্তর করার আগে চারটি অপশনই ভালো করে খেয়াল করবে।  অনেক সময় কাছাকাছি উত্তর প্রথম অপশনে দিয়ে সঠিক উত্তর পরবর্তী অপশনগুলোতে দেওয়া থাকতে পারে। তাই বাকি অপশনগুলো খেয়াল করে বৃত্ত ভরাট করবে। যেসব অঙ্ক করতে অনেক বেশি সময় লাগবে সেসব অঙ্ক প্রথমে না করাই ভালো। পরবর্তীতে বাকি প্রশ্নগুলোর উত্তর করে সেসব অঙ্কের সমাধান করা যেতে পারে। পদার্থবিজ্ঞানেও গণিতের মতো একইভাবে প্রস্তুতি নিতে হবে। রসায়নে বিক্রিয়া এবং অঙ্কগুলো ভালোভাবে অনুশীলন করবে। গণিত ও পদার্থবিজ্ঞানের তুলনায় রসায়নের উত্তর করতে কিছুটা কম সময় লাগে। এজন্য পরীক্ষায় রসায়নের উত্তর আগে করলে অন্য অংশের প্রশ্নের উত্তর করতে হাতে কিছুটা সময় বেশি পাওয়া যায়। অবশ্য তোমরা যে বিষয়ে বেশি দক্ষ সে বিষয় আগে উত্তর করতে পার। ইংরেজি অংশে ব্যাকরণ বিষয়ক কিছু প্রশ্ন থাকে। এছাড়া synonym, antonym, passage ইত্যাদি থেকেও প্রশ্নও আসতে পারে। বিগত বছরের প্রশ্নগুলোর সমাধান কর। তাহলে প্রস্তুতিতে অন্যদের চেয়ে এগিয়ে থাকবে।

পরীক্ষার জন্য বরাদ্দ সময় আড়াই ঘণ্টা। সুতরাং প্রতিটি প্রশ্নের উত্তরের জন্য সময় পাবে ১.৫ মিনিট। বিষয়টি মাথায় রেখে পরীক্ষা দিতে হবে। কোনো প্রশ্নের উত্তর না মেলাতে পারলে তা বার বার চেষ্টা করে সময় নষ্ট না করে দ্রুত পরের প্রশ্নে চলে যাওয়া ভালো। উত্তর না মিলতে থাকলে আতঙ্কিত না হয়ে ঠাণ্ডা মাথায় পরবর্তী প্রশ্নের সমাধান করা উচিত। খুলনার বাইরের শিক্ষার্থীদের আগের দিন রাতে অথবা পরীক্ষার দিন ভোরে শহরে পৌঁছানো উচিত। তীব্র প্রতিযোগিতামূলক কুয়েটের ভর্তিযুদ্ধে সফল হতে হলে সময় নষ্ট না করে সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা দিয়ে প্রস্তুতি গ্রহণ কর। তোমাদের জন্য শুভ কামনা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow