Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : রবিবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২৩:৩১
পঞ্চম শ্রেণির পড়াশোনা প্রাথমিক বিজ্ঞান
সুকুমার মন্ডল
সিনিয়র শিক্ষিক

প্রিয় পরীক্ষার্থী, প্রাথমিক বিজ্ঞান বিষয়ের ৩ নম্বরে থাকবে কাঠামোর প্রশ্ন। আজ কয়েকটি কাঠামোর প্রশ্নোত্তর দেওয়া হলো।

প্রশ্ন: উদ্ভিদ কীভাবে খাদ্য তৈরি করে? বীজের বিস্তরণ বলতে কী বোঝ? পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় তোমার এলাকায় উদ্ভিদ সংরক্ষণের তিনটি উপায় লিখ।

উত্তর: উদ্ভিদ সূর্যের আলো, পানি ও বায়ু থেকে কার্বন ডাই-অক্সাইড ব্যবহার করে নিজের খাদ্য নিজেই তৈরি করে।

মাতৃ উদ্ভিদ থেকে বিভিন্ন স্থানে বীজের ছড়িয়ে পড়াই হলো বীজের বিস্তরণ।

পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় আমার এলাকায় উদ্ভিদ সংরক্ষণের তিনটি উপায় হলো—

১. অকারণে গাছপালা না কাটা।

২. ইট পোড়ানোর ক্ষেত্রে গাছপালার কাঠের পরিবর্তে অন্য জ্বালানি ব্যবহার করা।

৩. এলাকার সবাইকে বেশি বেশি বৃক্ষরোপণে উৎসাহিত করা।

 

প্রশ্ন: মানুষ বেঁচে থাকার জন্য কীসের ওপর নির্ভরশীল? এই নির্ভরশীলতা সম্পর্কে চারটি বাক্য লিখ।

 

উত্তর: অন্যান্য প্রাণির মতো মানুষও বেঁচে থাকার জন্য জড় বস্তুর ওপর নির্ভরশীল।

 

নিচে এই নির্ভরশীলতা সম্পর্কে চারটি বাক্য হলো:

১. মানুষ শ্বাস গ্রহণের জন্য বায়ু থেকে অক্সিজেন গ্রহণ করে।

২. মানুষকে বেঁচে থাকার জন্য পানি পান করতে হয়।

৩. মানুষের বেঁচে থাকার জন্য পুষ্টি কম খাবার প্রয়োজন।

৪. জীবনযাপনের জন্য মানুষের বাসস্থান, আসবাব, পোশাক, যন্ত্রপাতি ইত্যাদির প্রয়োজন হয়।

 

প্রশ্ন: পরিবেশ সংরক্ষণের একটি উপায় লিখ। উদ্ভিদের বেঁচে থাকার জন্য কেন মাটি, বায়ু ও পানি প্রয়োজন তা চারটি বাক্যে লিখ।

উত্তর: পরিবেশ সংরক্ষণের একটি উপায় হচ্ছে বেশি করে গাছ লাগানো।

উদ্ভিদের বেঁচে থাকার জন্য মাটি, বায়ু ও পানির প্রয়োজনীয়তা নিচে চারটি বাক্য হলো:

১. উদ্ভিদ মাটিতে জন্মে ও মাটি থেকে পুষ্টি উপাদান সংগ্রহ করে।

২. উদ্ভিদ পানির সাহায্য ছাড়া খাদ্য  তৈরি করতে পারে না।

৩. উদ্ভিদ খাদ্য তৈরি করতে বায়ুর কার্বন ডাই-অক্সাইড ব্যবহার করে।

৪. উদ্ভিদ তার শ্বসনকাজে বায়ুর অক্সিজেন ব্যবহার করে।

প্রশ্ন: উদ্ভিদ দেহের কত ভাগ পানি? উদ্ভিদ ও প্রাণীর বেঁচে থাকার জন্য পানির দুটি করে প্রয়োজনীয়তা লেখ।

উত্তর: উদ্ভিদ দেহের প্রায় ৯০ ভাগ পানি।

জীব অর্থাৎ উদ্ভিদ ও প্রাণীর বেঁচে থাকার জন্য পানি অত্যন্ত প্রয়োজনীয়।

উদ্ভিদের জন্য পানির প্রয়োজনীয়তা নিচে উল্লেখ করা হলো:

১. উদ্ভিদ খাদ্য তৈরিতে পানি ব্যবহার করে।

২. পানির মাধ্যমে উদ্ভিদ মাটি থেকে পুষ্টি উপাদান শোষণ করে।

 

প্রাণীর জন্য পানির প্রয়োজনীয়তা:

১. পানি দেহের বিভিন্ন অংশে পুষ্টি উপাদান পরিবহনে সাহায্য করে।

২. দেহের তাপমাত্রাকে স্বাভাবিক রাখতে সাহায্য করে।

প্রশ্ন: পরিবেশ সংরক্ষণের অন্যতম প্রধান উপায় কী? প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণে আমরা কীভাবে ভূমিকা রাখতে পারি তা চারটি বাক্যে লেখ।

 

উত্তর: পরিবেশ সংরক্ষণের অন্যতম প্রধান উপায় হচ্ছে জনসচেতনতা বৃদ্ধি করা। প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণে আমাদের ভূমিকা চারটি বাক্য হলো:

১. কাজ শেষে বাতি নিভিয়ে রেখে আমরা বিদ্যুৎ অপচয় রোধ করতে পারি।

২. যখন-তখন গাড়িতে চড়ার পরিবর্তে যতটা সম্ভব হেঁটে বা সাইকেল ব্যবহার করে আমরা প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণ করতে পারি।

৩. প্রাকৃতিক সম্পদের ব্যবহার কমিয়ে, পুনর্ব্যবহার করে ও রিসাইকেল করেও আমরা প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণ করতে পারি।

৪. পানির অপচয় রোধে কাজ শেষে পানির কল বন্ধ রেখে আমরা প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণ করতে পারি।

প্রশ্ন: পানিচক্র বলতে কী বোঝ? চারটি বাক্যে পানিচক্র ব্যাখ্যা কর।

উত্তর: যে প্রাক্রিয়ায় পানি বিভিন্ন অবস্থায় পরিবর্তিত হয়ে ভূপৃষ্ঠ ও বায়ুমণ্ডলের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে তা-ই পানিচক্র।

সাগর ও নদীর পানি বাষ্পীভূত হয়ে জলীয় বাষ্পে পরিণত হয়। বাষ্পীভূত পানি ওপরে উঠে ঠাণ্ডা ও ঘনীভূত হয়ে পানির বিন্দুতে পরিণত হয়। ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র পানির বিন্দু একত্র হয়ে মেঘের সৃষ্টি করে। এই মেঘের পানিকণা বড় হয়ে বৃষ্টিপাত হিসেবে আবার ভূপৃষ্ঠে ফিরে আসে।

প্রশ্ন: পরিবেশ সংরক্ষণ কী? পরিবেশ সংরক্ষণের চারটি উপায় লেখ।

উত্তর: প্রাকৃতিক সম্পদের সুরক্ষা এবং যথাযথ ব্যবহারই হচ্ছে পরিবেশ সংরক্ষণ।

পরিবেশ সংরক্ষণের চারটি উপায় হলো:

১.জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে।

২.নির্বিচারে গাছপালা কাটা বন্ধ করতে হবে।

৩.নদী-নালা ভরাট বন্ধ করতে হবে।

৪.অপরিকল্পিতভাবে বাড়িঘর, কলকারখানা তৈরি করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow