Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ২০ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২০ জুন, ২০১৬ ০০:২৮
অল্পের জন্য রক্ষা...
শোবিজ প্রতিবেদক
অল্পের জন্য রক্ষা...
ফাহমিদা নবী

গত বছরের শেষ দিকে তুরস্কের একটি সৈকতে সিরিয়ার শিশু আয়লানের নিষ্প্রাণ শরীর ভেসে ওঠার ছবি বিশ্ববাসী দেখেছে। তুরস্কের সৈকতে ভেসে ওঠা ছোট্ট শিশু আয়লানের ছবিটি বিশ্ব বিবেককে বেশ নাড়া দিয়েছিল। ছোট্ট সেই আয়লানকে নিয়ে একটি গানের ভিডিওর শুটিং করতে কক্সবাজার সমুদ্র  সৈকতের ইনানি পয়েন্টে গিয়ে বিপদে পড়েছিলেন গায়িকা ফাহমিদা নবী। রোমেলা নামের ছোট্ট শিশু মডেলের সহযোগিতায় প্রাণে বেঁচে যান তিনি।

সম্প্রতি সিরিয়ার শিশু আয়লানকে নিয়ে তৈরি গানটিতে কণ্ঠ দেন ফাহমিদা নবী। সেই গানের ভিডিওর শুটিং করতে দলবলসহ কক্সবাজার গিয়েছিলেন ফাহমিদা নবী। এতে তার সঙ্গে মডেল হয়েছে ছোট্ট শিশু রোমেলা। ইনানি পয়েন্টে যখন শুটিং করছিলেন, তখন ছিল ভাটার সময়। বিষয়টি নাকি একেবারেই খেয়াল করেননি ফাহমিদা নবীসহ শুটিং ইউনিটের কেউই। আর তখনই ঘটে দুর্ঘটনা। বিষয়টা এমন যে, সাগরে ভেসে আসা আয়লানকে নিয়ে তৈরি গানের ভিডিওর শুটিং করতে গিয়ে নিজেই সাগরে ভেসে যাচ্ছিলেন ফাহমিদা নবী।

শনিবার দুপুরে ফাহমিদা নবী বললেন সেই ভয়াবহ দিনটির কথা। ‘ইনানি পয়েন্টে পাথরের ওপর বসে আমরা শুটিং করছি। আমার সঙ্গে ছিল শিশু রোমেলা। হঠাৎ করে জোরে আসা পানি ধাক্কা দিয়ে আমাকে একেবারে ডুবিয়ে দেয়। মুহূর্তেই পাথরের ওপর থেকে পড়ে যাই। আমাকে ধরে রেখেছিল রোমেলা। পানি নেমে যাওয়ার সময় আমাকে যেন টেনে নিয়েই যাচ্ছিল। তখনই ধাক্কা খাই আরেকটি পাথরের সঙ্গে। হাত-পায়ে বেশ জোরে আঘাত পাই। রোমেলাও দেখছি আমাকে বাঁচানোর জন্য প্রাণপণ চেষ্টা করছে। সেদিনই প্রথম বুঝলাম কীভাবে ভাটার টানে মানুষ হারিয়ে যায়। জীবনের সবচেয়ে ভয়াবহ একটি দুর্ঘটনা থেকে সেদিন প্রাণে বেঁচে গেলাম।’

এই পাতার আরো খবর
up-arrow