Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : সোমবার, ২৭ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৬ জুন, ২০১৬ ২৩:২৪
ওপার বাংলায় শাকিব-অপুর ‘রাজা-৪২০’
ঈদে মুক্তি পাচ্ছে না কলকাতার ছবি
আলাউদ্দীন মাজিদ
ঈদে মুক্তি পাচ্ছে না কলকাতার ছবি

ঈদে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল কলকাতার একটি ছবি। দুই দেশের আমদানি-রপ্তানি প্রতিষ্ঠান অনেক দৌড়ঝাঁপও করেছে। শেষ পর্যন্ত ঈদে আনতে পারছে না ছবিটি। সাফটা চুক্তিতে থাকা আমদানি-রপ্তানি নীতিমালার শর্ত পূরণের জালে আটকে গেছে ঈদে কলকাতার ছবি মুক্তি। শর্ত অনুুযায়ী আগে এপার বাংলার ছবি কলকাতায় যাবে। সেন্সর ও মুক্তির পর তার বিপরীতে সেখানকার ছবি আসবে। এই শর্ত পূরণে স্থানীয়  প্রতিষ্ঠান আরাধনা ফিল্মস গত মঙ্গলবার কলকাতায় প্রেরণ করে শাকিব-অপু জুটির ছবি  ‘রাজা-৪২০’। ছবিটি সেখানে প্রদর্শনের পর আসবে কলকাতার ছবি ‘প্রেমের গোলমাল’। ঈদের বাকি আছে মাত্র ১১ দিনের মতো। ‘রাজা-৪২০’ এখনো সেন্সর না হওয়ায় সেটি কলকাতায় কখন মুক্তি পাবে তা অনিশ্চিত। তাই সময় কম থাকায় কোনোভাবেই ঈদে আসতে পারছে না কলকাতার ছবি।

মে মাসে কলকাতার চলচ্চিত্র প্রযোজনা সংস্থা ভেংকটেশ ফিল্মসের কর্ণধার শ্রীকান্ত মেহেতা ও সেখানকার আরেক প্রযোজক বিজয় খেমকা ঢাকায় আসেন ঈদে এদেশে কলকাতার ছবি প্রদর্শনের প্রস্তাব নিয়ে। কিন্তু স্থানীয় চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সিনিয়র সহ-সভাপতি ও ভারতীয় ছবি আমদানি-রপ্তানির অন্যতম উদ্যোক্তা সুদীপ্ত কুমার দাস ঈদে এখানে কলকাতার ছবি প্রদর্শনের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান  নেন। সুদীপ্ত দাসের যুক্তি ছিল চলচ্চিত্র ব্যবসার প্রধান মৌসুম হচ্ছে ঈদ। এসময় যদি ভারতীয় বিগ বাজেট ও তারকার নতুন ছবি এখানে মুক্তি পায় তাহলে স্থানীয় ছবি ক্ষতির মুখে পড়বে এবং চলচ্চিত্র নির্মাণে উৎসাহ হারাবে প্রযোজক। চলচ্চিত্র শিল্প একেবারেই ধ্বংস হয়ে যাবে। এই কর্মকর্তার বাধার মুখে বিজয় খেমকা ও মেহেতা  আরাধনা ফিল্মসের কর্ণধার কার্তিক দের শরণাপন্ন হন। কার্তিক দের মাধ্যমে ঈদে এখানে কলকাতার ‘প্রেমের গোলমাল’ ছবিটি প্রদর্শনের উদ্যোগ নেন তারা। সাফটা চুক্তি অনুযায়ী ছবি বিনিময় করতে কলকাতার ছবি লাভ এক্সপ্রেস, জুলফিকার, চাঁদের পাহাড় ও প্রেমের গোলমাল এখানে রপ্তানির ব্যবস্থা করে কলকাতার শ্রী ভেংকটেশ ফিল্মস। আর আরাধনা ফিল্মস কলকাতায় রপ্তানি করার সিদ্ধান্ত নেয় হিটম্যান, রাজা-৪২০, মাই নেম ইজ সুলতান এবং বুক ফাটে তো মূুখ ফুটে না ছবি চারটি। এ সংক্রান্ত আবেদন এদেশের আমদানি-রপ্তানিযোগ্য চলচ্চিত্র বাছাই কমিটিতে জমা দিলে কমিটি সাফটা চুক্তি অনুযায়ী আগে স্থানীয় ছবি রাজা-৪২০ কলকাতায় রপ্তানি এবং সেটি সেখানে সেন্সর ও প্রদর্শনের পর সেন্সর বোর্ড ও সিনেমা হলের রিপোর্ট প্রাপ্তি সাপেক্ষে ঈদে ‘প্রেমের গোলমাল’ ছবিটি আমদানির নির্দেশ দেয়। সেই হিসেবে ২১ জুন আরাধনা ফিল্মস কলকাতায় রপ্তানি করে রাজা-৪২০ ছবিটি। কার্তিক দে বলেন, এখনো ছবিটি কলকাতায় সেন্সর হয়নি। আমরা কলকাতার পার্টিকে জানিয়েছি দ্রুত সেন্সর করে ছবিটি সেখানে প্রদর্শনের। যাতে আমরা ‘প্রেমের গোলমাল’ ছবিটি শিগগিরই এখানে মুক্তি দিতে পারি। তিনি বলেন এখন ঈদে আর ছবিটি মুক্তি দেওয়া সম্ভব হবে না। ২২ জুলাই এটি মুক্তির ব্যবস্থা নিচ্ছি। চলচ্চিত্রকাররা বলছেন ভারতীয় দুই চলচ্চিত্র ব্যবসায়ীর ঈদে এখানে তাদের নতুন ছবি মুক্তির মাধ্যমে এদেশে ছবির বাজার তৈরির অপচেষ্টা নস্যাৎ হয়ে গেল। ভবিষ্যতে কেউ যেন এমন দুঃসাহস দেখানোর সুযোগ না পায় সে বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে। বিজয় খেমকা বলেছিলেন আগে যারা চলচ্চিত্র আমদানি-রপ্তানির উদ্যোগ নেয় তাদের দায়সারাগোছের কাজের কারণে এই উদ্যোগ ফলপ্রসূ হয়নি। ঈদে ও ঈদের পরে নিয়মিতভাবে কলকাতার ছবি বাংলাদেশে মুক্তির ব্যাপারে তিনি বেশ উচ্ছ্বসিত ছিলেন। চলচ্চিত্রের লোকজন বলছেন বিজয় খেমকার উচ্ছ্বাস অকালে চুপসে গেছে। শেষ পর্যন্ত তিনি হেরে গেলেন। প্রদর্শক সমিতির সিনিয়র সহ-সভাপতি সুদীপ্ত কুমার দাস আবারও দৃঢতার সঙ্গে উল্লেখ করেন, ছবি আমদানি- রপ্তানি বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের লোকজন করবে। ভারতীয়রা নয়। আর ছবি আনব সীমিত আকারে শুধু আমাদের ছবির ঘাটতি পূরণ ও সিনেমা হল বাঁচাতে। ভারতীয় ছবির বাজার তৈরি ও স্থানীয় ছবির ক্ষতি করতে নয়। ঈদ বা পূজায় কোনো ভারতীয় ছবি এখানে মুক্তি দিতে দেব না। কারণ এসব উৎসব হচ্ছে চলচ্চিত্র ব্যবসার প্রধান সময়। আগে দেশীয় চলচ্চিত্রের স্বার্থ রক্ষা করব, তারপর বিদেশি ছবি আমদানির চিন্তা করা হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow