Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ জুলাই, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ জুলাই, ২০১৭
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১২ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১২ জুলাই, ২০১৬ ০০:১৯
আজ ‘ইত্যাদি’র পুনঃপ্রচার
শোবিজ প্রতিবেদক
আজ ‘ইত্যাদি’র পুনঃপ্রচার
‘ইত্যাদি’তে মমতাজ ও হানিফ সংকেত

দর্শক প্রশংসাধন্য ঈদের বিশেষ ইত্যাদি পুনঃপ্রচার  হবে বিটিভিতে আজ রাত ৮টার বাংলা সংবাদের পর। এবারের ইত্যাদি দর্শক রায়ে ঈদের সেরা অনুষ্ঠান হিসেবে মূল্যায়িত হয়েছে।

শুধু বিনোদনই নয়। ঈদ ইত্যাদি ছিল সত্যিকার অর্থেই একটি শিক্ষা, তথ্য ও বিনোদনমূলক অনুষ্ঠান। বিষয় বৈচিত্র্যে ঠাসা এবারের ইত্যাদি দর্শকদের যেন মন্ত্রমুগ্ধের মতো বসিয়ে রেখেছে টেলিভিশনের সামনে। দীর্ঘ ২৭/২৮ বছর চলার পরও দর্শকরা এখনো অপেক্ষা করেন এই অনুষ্ঠানটি দেখার জন্য। কেন অপেক্ষা করেন? যারা এবার ইত্যাদি দেখেছেন তারা এর উত্তর জানেন। শতাধিক দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানুষকে দিয়ে ঈদ আনন্দের গান করানো হলো শুরুতেই। অর্থাৎ শুরুতেই একটি নান্দনিক এবং মানবিক চমক। তেমনি ভিনগ্রহের মানুষরা বাংলাদেশে এসে যখন ভেজাল, দখলদার, দুর্নীতিবাজ মানুষদের কথা বলছিল আর তখন একজন মুক্তিযোদ্ধা এসে তাদের ভুল ভাঙিয়ে দিয়ে বললেন, কিছু দুষ্ট চরিত্রের মানুষকে বাদ দিলে এ দেশের মানুষ দেশ প্রেমিক, এ দেশটি একটি সোনার দেশ। তখন শরীরে কাঁটা দিয়ে উঠেছে অনেকেরই। শিল্পের নান্দনিকতা এখানেই। প্রতিবারই বিদেশিদের পর্বটি হয় অসাধারণ। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। প্রায় ১০০ জন বিদেশি তাদের নাচ-গান-অভিনয়ে বাংলা ভাষায় বুঝিয়ে দিলেন-বাল্যবিবাহ অপরাধ,-তাদের আইনের হাতে

তুলে দেওয়া উচিত। এ্যান্ড্রু কিশোরের গানে ফুটে উঠেছে নারী নির্যাতন, শিশু নির্যাতন এবং সামাজিক অবক্ষয়ের চিত্র। দলীয় সংগীতেও তুলে ধরা হয়েছে নানান অসঙ্গতি। অনুষ্ঠানের শেষেও ছিল চট্টগ্রামের ৪ অন্ধ সহোদরার মানবিক চিত্র। সবকিছু মিলিয়ে বরাবরের মতো এবারের ইত্যাদিও ছিল অসাধারণ, শিক্ষণীয়, অনুকরণীয়। ঈদের হাজার অনুষ্ঠানের ভিড়ে একমাত্র চমৎকার একটি অনুষ্ঠান উপহার দেওয়ার জন্য হানিফ সংকেত এবং বিটিভিকে ধন্যবাদ।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow